ঢাকা, বুধবার 15 May 2019, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ৯ রমযান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

কূটনীতিকদের সম্মানে বিএনপির ইফতার

গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর একটি অভিজাত হোটেলে কূটনীতিকদের সম্মানে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির উদ্যোগে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : কারাবন্দী দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে কূটনীতিকদের সম্মানে ইফতার দিয়েছে বিএনপি। গতকাল মঙ্গলবার গুলশানের ওয়েস্টিন হোটেলে এই ইফতার অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ইফতারে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনার এবং দাতা সংস্থার প্রতিনিধিদের স্বাগত জানান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ইফতারে দেশ, জাতি ও দলের চেয়ারপার্সনের মুক্তি কামনায় দোয়া পরিচালনা করেন ওলামা দলের আহবায়ক মাওলানা শাহ নেছারুল হক। 
ইফতার পার্টিতে উপস্থিত ছিলেন কূটনৈতিক কোরের ডীন ভ্যাটিকেন সিটির রাষ্ট্রদূত জর্জ কোচেরি, মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার, ভারতের হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলী দাস, জাপানের রাষ্ট্রদূত হিরোইয়াসু ইজুমি, চীনের রাষ্ট্রদূত ঝেং ঝু, ডেপুটি হেড অব মিশন চেন উই, ফ্রান্সের  রাষ্ট্রদূত মেরি অ্যানিক বোরডিন, অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনার জুলিয়া নিবলেট, যুক্তরাষ্ট্রের ডেপুটি চিফ মিশন জোয়েল রিফম্যান, কানাডার হাইকমিশনার বেনোয়েট প্রেফনটেন, পালিটিক্যাল কাউন্সিলর বেরি ব্রিস্টম্যান, তুরস্কের রাষ্ট্রদূত দামরিম ওজতুর্ক, পাকিস্তানের ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার শাহ ফয়সাল কাকার, ভারতের ফার্স্ট সেক্রেটারি (রাজনৈতিক) রাজেস উইক, নরওয়ের রাষ্ট্রদূত সিডসেল ব্লেকেন, আফগানিস্তানের রাষ্ট্রদূত আবদুর রহিম ওরাজ, ইউএনডিপির আবাসিক প্রতিনিধি মিয়া সিপ্পু, রেডক্রসের হেড অব ডেলিগেশন ইফতিয়ার আসানালব, ইউইইউর চার্জ দ্য এ্যাফেয়ার্স কংস্টামসন বার্ডাকিস, স্পেনের রাষ্ট্রদূত আলভারো ডি সালাস গিমেনেজ ডি আজকারাত, তুরস্কের রাষ্ট্রদূত ডেভরিম ওজতর্ক ও কাতারের রাষ্ট্রদূত আহমেদ মোহাম্মদ আল-দিহাইমি, ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত রেনজি তিরিংক প্রমুখ। এছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাত,  যুক্তরাজ্য,  লিবিয়া, শ্রীলঙ্কা, রাশিয়া, সুইডেন, ডেনমার্ক, ভুটান, নেদারল্যান্ড, ইরান, ভিয়েতনাম ও সুইজারল্যান্ডের প্রতিনিধিসহ ৩৭টি দেশের কূটনীতিক, জাতিসংঘ ও দাতা সংস্থার প্রতিনিধিরা এ ইফতারে অংশ নেন।
প্রতিবছর রমযানে খালেদা জিয়া কূটনীতিকদের নিয়ে ইফতার করতেন। গতবছরের ফেব্রুয়ারিতে একটি দুর্নীতির মামলায় কারাগারে যাওয়ার পর এবারসহ দুইবার তিনি ইফতারে উপস্থিত থাকতে পারেননি। তার পক্ষে মহাসচিবসহ স্থায়ী কমিটির সদস্যরা কূটনীতিকদের নিয়ে ইফতারের সেই আয়োজন সক্রিয় রেখেছেন।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, হাফিজউদ্দিন আহমেদ, বরকতউল্লাহ বুলু, আবদুল আউয়াল মিন্টু, মাহবুব হোসেন, মীর নাসির, জয়নাল আবেদীন, গোলাম আকবর খন্দকার, সুকোমল বড়ুয়া, শওকত মাহমুদ, আবদুল কাইয়ুম, মাহবুবউদ্দিন খোকন, মাসুদ আহমেদ তালুকদার, শ্যামা ওবায়েদ, রুমিন ফারহানা, জেবা খান, তাবিথ আউয়াল প্রমূখরা উপস্থিত ছিলেন।
এছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্ণর সালেহউদ্দিন আহমেদ, ঢাবির সাবেক ভিসি এমাজউদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক ড. মাহবুব উল্লাহ, অধ্যাপক খন্দকার মুস্তাহিদুর রহমান, অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী, অধ্যাপক আসিফ নজরুল, অধ্যাপক বোরহানউদ্দিন আহমেদ, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ড. শাহদীন মালিক, মিসেস শাহদীন মালিক, অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল ফজলে এলাহী আকবর, সাবেক রাষ্ট্রদূত হুমায়ুন কবির, সিরাজুল ইসলাম সবুজ, শামীম আহমেদ, সাবেক প্রেস সচিব তাজুল ইসলাম, চেয়ারপার্সনের একান্ত সচিব আবদুস সাত্তার প্রমুখরা ইফতারে অংশ নেন।
গণমাধ্যমে সম্পাদকদের মধ্যে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি রিয়াজউদ্দিন আহমেদ, মানবজমিনের মতিউর রহমান চৌধুরী, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের তৌফিক ইমরোজ খালিদী, যুগান্তরের সাইফুল আলম, ভোরের কাগজের শ্যামল দত্ত, বাংলাদেশ প্রতিদিনের উপসম্পাদক আবু তাহেরসহ কয়েকজন জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ইফতারে অংশ নেন।
বিএনপি চেয়ারপার্সনের পক্ষে রমযানের প্রথম দিন ওলামা মাশায়েখ ও এতিমদের সন্মানে ইফতারের আয়োজন করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ