ঢাকা, বুধবার 15 May 2019, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ৯ রমযান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ছাত্রলীগ নেতা সারোয়ার গ্রেফতারের ২ ঘণ্টা পর মুক্ত

সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নারী চিকিৎসককে ছাত্রলীগ নেতা কর্তৃক প্রকাশ্য ধর্ষণের হুমকির প্রতিবাদে নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এ কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

সিলেট ব্যুরো : নগরীর সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইন্টার্ণ নারী চিকিৎসককে প্রকাশ্যে হত্যা ও ধর্ষণের হুমকির মামলায় ছাত্রলীগ নেতা সারোয়ার হোসেন চৌধুরীকে গ্রেফতার করেছে  কোতোয়ালী থানা পুলিশ। আদালতের জামিনের কাগজপত্র দেখানোর পর গ্রেফতারের ২ ঘন্টার মাথায় সারোয়ারকে ছেড়ে দেয়  কোতোয়ালী থানা পুলিশ।
গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে সারোয়ারকে গ্রেফতারের দাবিতে যখন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে উইমেন্স মেডিকেল কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করছিল ঠিক সেই মুহর্তে  বন্দর বাজার কোর্ট পয়েন্ট এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
বিষয়টি নিশ্চিত করে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার জেদান আল মুসা বলেন- উইমেন্স মেডিকেলের দায়ের করা মামলায় গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের সময় সে জামিন নিয়েছে বলে পুলিশের কাছে দাবি করে। এসএমপির কতোয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ সেলিম মিয়া দৈনিক সংগ্রামকে জানান গ্রেফতারকৃত সারোয়ার অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিজ্ঞ বিচারকের কাছে তার জামিন প্রার্থনা করলে আদালত তার জামিন মঞ্জুর করেন। এরপর জামিননামা দেখানোর পর কতোয়ালী পুলিশ ছেড়ে দেয় তাকে।
উইমেন্স ডাক্তার লাঞ্ছনার প্রতিবাদে মানববন্ধন
এদিকে সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছাত্রলীগ নেতা সারোয়ার হোসেন চৌধুরীর হাতে দায়িত্বরত, চিকিৎসক, নিরাপত্তাপ্রহরী ও লিফটম্যান লাঞ্চনার ঘটনায় ইন্টার্ন ডাক্তারা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১২টায় উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন ডাক্তারা সিলেট চৌহাট্টাস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।
এছাড়া ইন্টার্ন ডাক্তারা তারা তাদের কর্মবিরতি অব্যাহত রয়েছে। পাশাপাশি তারা আন্দোলনের নতুন কর্মসূচিও ঘোষণা করেছেন। গতকাল সোমবার নগরীর মিরবক্সটুলাস্থ উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই কর্মসূচি ঘোষণা করন ডা. ইফাত আরা চৌধুরী। তারা আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে সন্ত্রাসী সারোয়ার হোসেন চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা গ্রহন ও গ্রেফতারের দাবিতে সিলেটের সকল মেডিকেলের ইন্টার্ণ ডাক্তারদের কর্মবিরতি শুরুর আহ্বান জানান।
উইমেন্স মেডিকেল কলেজের ইন্টার্ন ডাক্তাররা গতকাল সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত সিলেট বিভাগের সব মেডিকেলের সব ডাক্তারদের কর্মবিরতি, একই দিনে সিলেট বিভাগের সব বিশেষজ্ঞ ডাক্তারকে বিকাল ৪টা-৬টা পর্যন্ত প্রাইভেট প্র্যাকটিস বন্ধ রাখা, সকাল ১১টায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে মানববন্ধন এবং প্রতিবাদ সমাবেশে যোগদান, বিএমএ সভাপতি ও সম্পাদক, সিভিল সার্জন, ডেপুটি ডিরেক্টর (স্বাস্থ্য), বিভাগীয় পুলিশ কমিশনার ও জেলা প্রশাসক বরাবর স্বারকলিপি প্রদানের কর্মসূচিও গ্রহণ করা হয়েছে।
মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, ডা. নিজাম আহমদ চৌধুরী, ডা. হিমাংশু শেখর দাস, ডা. মাহবুব, ডা. দ্বীপ, ডা. সজীব, ডা. জাবের, ডা. ইশফাক জামান সজীব, ডা. জাবেদ আহমদ, ডা. রিপন, ডা. তিতাশ কুমার, ডা. সোলেমান বাবু, ডা. আফজাল, ডা. সুনান্ত, ডা. সাব্বির আহমদ, ডা. হরশিত বিশ্বাস, ডা. প্রবাল, ডা. হৃদয়।
উল্লেখ্য, গত ৯ মে বৃহস্পতিবার সিলেট উইমেন্স মিডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছাত্রলীগ নেতা সরোয়ার হোসেন চৌধুরী তার এক বন্ধুকে অ্যাপেন্ডিসাইটিস সংক্রান্ত জটিলতার চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন এবং কর্তব্যরত ডাক্তরকে তার ১৫/২০ জন অনুসারির সামনে চিকিৎসা কার্যক্রম শুরুর নির্দেশ দেন। ডাক্তার নিশাত তাদের বেরিয়ে যাওয়ার কথা বললে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সরোয়ার ছুরি নিয়ে ডাক্তারের উপর হামলা ও তাকে ধর্ষনের হুমকি দেন। এর প্রতিবাদে তারা কর্মবিরতিতে রয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ