ঢাকা, বৃহস্পতিবার 16 May 2019, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১০ রমযান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

চুয়াডাঙ্গায় ইফতার মাহফিল থেকে আটক জামায়াতের ৪৪ নারী সদস্যসহ ৪৫জনকে জেলহাজতে প্রেরণ

চুয়াডাঙ্গা সংবাদদাতাঃ চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার ইফতার ও দোয়া মাহফিল থেকে আটক জামায়াতের ৪৪ জন নারী সদস্যসহ সর্বমোট ৪৫ জনকে গতকাল বুধবার সকাল ১১ টার দিকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার হাটবোয়ালিয়া গ্রাম থেকে তাদের আটক করা হয়।
আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান মুন্সি জানিয়েছিল, হাটবোয়ালিয়া গ্রামের জাহিদুল ইসলাম টিটুর বাড়িতে জামায়াতের প্রায় অর্ধশত নারী সদস্য গোপন বৈঠক করছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর বেলা সাড়ে ১২টার দিকে অভিযান চালানো হয়। অভিযান শুরু দিকে বেশ কয়েকজন পালিয়ে গেলেও বাড়ি মালিকসহ জামায়াতের ৪৮ জন নারী সদস্য পুলিশের হাতে ধরা পড়ে।
আটককৃতদের মধ্যে বৃদ্ধ, অন্তঃসত্ত্বা, জটিলরোগী ও দুগ্ধপোষ্য শিশু থাকায় ৪ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে জামায়াতের এক নারী নেত্রীর স্বামী খবির উদ্দীনকেও পুলিশ বাড়ী থেকে আটক করলে আসামীর সংখ্যা ৪৫ জনে দাড়ায়। আটককৃত ৪৫ জনের বিরুদ্ধে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫(৩)/২৫-ডি ধারায় মামলা করে গতকাল বুধবার সকাল ১০টায় ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে হাজির করলে কোর্ট জামিন নামঞ্জুর করে তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরনের আদেশ দেয়।
এদিকে এই ঘটনায় চুয়াডাঙ্গা জেলা জামায়াতের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। জেলা জামায়াতের সেক্রেটারী অ্যাডভোকেট মোঃ রুহুল আমিন জানিয়েছেন- জামায়াতের বিরুদ্ধে আনীত নাশকতার অভিযোগ সম্পূর্ন কাল্পনিক। বরং প্রতিবছরের মতো এবারও মহিলা জামায়াতের উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছিল। পুলিশ সেখান থেকে নিরীহ মহিলাদের আটক করে। সারাদেশে কোন রাজনৈতিক কর্মকান্ড নেই, নেই কোন উত্তেজনাকর পরিস্থিতি। সেখানে পবিত্র রমজান মাসে কথিত নাশকতার ধুয়া তুলে নিরীহ ধর্মপ্রাণ মহিলাদের আটক অত্যন্ত লজ্জাজনক। তারা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও আটক মহিলাদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ