ঢাকা, শুক্রবার 17 May 2019, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১১ রমযান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

প্রিন্স হোটেল ও আগোরার ইন্দিরা রোড শাখাকে জরিমানা

স্টাফ রিপোর্টার : ফ্রিজে পচা সবজি ও মাংস একসঙ্গে রাখায় চেইন সুপার শপ আগোরার ঢাকার ইন্দিরা রোড শাখাকে ১ লাখ টাকা জরিমানা গুণতে হয়েছে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ভ্রাম্যমাণ আদালত গতকাল বৃহস্পতিবার অভিযান চালিয়ে এই জরিমানা করে। ডিএনসিসি অঞ্চল- ৫ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী হাকিম মীর নাহিদ আহসানের নেতৃত্বে এই অভিযান চলে।

মীর নাহিদ আহসান বলেন, সকাল সাড়ে ১০টায় ফার্মগেইট এলাকায় অভিযান শুরু হওয়ার পর তারা আগোরার ইন্দিরা রোড শাখায় যান। সেখান গিয়ে তারা দেখতে পান, ফ্রিজে পচা সবজি ও মাংস একসঙ্গে রাখা হয়েছে। তখন ভোক্তা অধিকার আইন অনুযায়ী আগোরাকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এ বিষয়ে কথা বলতে আগোরার ইন্দিরার রোড শাখায় ফোন করা হলে তাদের কেউ সাড়া দেননি।

মীর নাহিদ আহসানের নেতৃত্বে এই অভিযানে ইন্দিরা রোডে আগোরার পাশের প্রিন্স হোটেলকে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। রেস্তোরাঁটিতে অপরিচ্ছন্ন-অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার রান্না করা হচ্ছিল। এই অভিযানে কারওয়ান বাজার, ফার্মগেইট ও ইন্দিরা রোড এলাকায় বেশ কয়েকটি অবৈধ স্থাপনাও উচ্ছেদ করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। 

মীর নাহিদ জানান, কারওয়ান বাজারে রাস্তা দখল করে থাকা প্রায় দুই শতাধিক অস্থায়ী দোকান উচ্ছেদ করা হয়।

এছাড়া ফার্মগেইট ওভারব্রিজ থেকে ইন্দিরা রোডে ফুটপাত ও রাস্তা দখল করে রাখা আরও প্রায় দুই শতাধিক অস্থায়ী দোকান উচ্ছেদ করা হয়।

অন্যদিকে মূল্য তালিকা না রাখায় বনানী কাঁচা বাজার ও নতুন বাজারের কাঁচাবাজার এলাকার বেশ কয়েকটি দোকানকে জরিমানা করে করপোরেশনের আরেকটি ভ্রাম্যমাণ আদালত। ডিএনসিসির নির্বাহী হাকিম সাজিদ আনোয়ারের নেতৃত্বে বেলা ১২টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এই অভিযান পরিচালিত হয়।

সাজিদ আনোয়ার বলেন, “বনানী কাঁচাবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে বেশকটি সবজি ও মুদি দোকানে আমরা অনিয়ম দেখতে পেয়েছি। কাঁচা মরিচের দাম বেশি রাখা এবং মূল্য তালিকা না রাখার অপরাধে ৫টি দোকানকে ভোক্তা অধিকার আইন অনুযায়ী সর্বমোট ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।” 

নতুন বাজার এলাকায় দুটি মাংসের দোকানে মূল্য তালিকা না থাকায় ২০ হাজার টাকা করে ৪০ হাজার টাকা এবং একটি মুদি দোকানে মূল্য তালিকা না থাকায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পুরো রমযান জুড়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ