ঢাকা, শুক্রবার 17 May 2019, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১১ রমযান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

সম্প্রীতি বাংলাদেশের নামে ধর্মীয় উসকানি মূলক বিজ্ঞাপণ প্রচারের ৫ দিন পর অস্বীকার 

 

স্টাফ রিপোর্টার: সন্দেহভাজন জঙ্গী সদস্য সনাক্তকরণের রেডিক্যাল ইন্ডিকেটর নিয়ামকসমূহ শিরোনামে সম্প্রীতি বাংলাদেশ নামে একটি সংগঠন গত ১২ মে দৈনিক ইত্তেফাকসহ প্রায় সকল জাতীয় দৈনিকে একটি বিজ্ঞাপণ প্রচার করে। ঐ বিজ্ঞাপণের ক, জ, ঝ নম্বর ধারায় বলা হয়: হঠাৎ করে দাড়ি রাখা এবং টাখনুর উপরে কাপড় পরিধান করা, সুনির্দিষ্ট কিছু মসজিদ এবং ইমামের পিছনে নামাজ পড়ার প্রবণতা এবং অতিমাত্রায় ধর্মীয় পড়াশুনা ও চর্চার প্রতি ঝোঁককে তারা জঙ্গী হিসেবে প্রচার করে। এই বিজ্ঞাপণ প্রচারের পর পর সারাদেশে সমালোচনার ঝড় উঠায় তারা ৫ দিন পর গতকাল বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে অস্বীকার করেন, সম্প্রীতি বাংলাদেশ আহবায়ক পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, আমরা মনে করি সবাইকে আঘাত করার জন্য কোনো ষড়যন্ত্র হচ্ছে বলে ।

গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এই অস্বীকার করার কথা জানান। এসময় সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব উইলিয়াম প্রলয় সমাদ্দার, সাবেক সংস্কৃতি ও তথ্যসচিব নাসির উদ্দিন আহমেদ, ইসলামী ঐক্যজোট চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরী, সম্প্রতি বাংলাদেশ সদস্য সচিব মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল প্রমুখ।

পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, সম্প্রতি বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত জঙ্গি শনাক্তকরণ বিজ্ঞাপন নিয়ে বাংলাদেশ সম্পর্কে অসত্য তথ্য উপস্থাপন করে দেশের মানুষদের বিভ্রান্ত করার অপ্রচেষ্টা আমাদের নজরে এসেছে। মূল কথা হলো গত রোববার (১২ মে) দেশের বেশ কিছু জাতীয় পত্রিকায় প্রচারিত বিজ্ঞাপনটি প্রসঙ্গে কোনো পর্যায়ে আমাদের প্রিয় সংগঠন ‘সম্প্রতি বাংলাদেশ’র সংশ্লিষ্টতা নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ