ঢাকা, বৃহস্পতিবার 19 September 2019, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মহররম ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

ফিলিস্তিনিদের ইফতারের জন্য রোনালদোর দেড় মিলিয়ন ডলার

ছবি: টুইটার

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: সংযম ও সহিষ্ণুতার বার্তা নিয়ে সারা বিশ্বে পালিত হচ্ছে পবিত্র রমজান মাস। কিন্তু অন্যান্য দেশের মতো শান্তিতে রোজা রাখতে পারছেন না ফিলিস্তিনের মানুষ। ইসরাইলের হামলায় প্রতিনিয়ত রক্ত ঝরছে সেখানে। বরাবরই ফিলিস্তিনিদের প্রতি নিজের সমর্থন ও সহানুভূতি প্রকাশ করে আসছেন পর্তুগিজ ফুটবলার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। এবার দেশটির গাজা উপত্যকার মানুষদের জন্য ইফতারের ব্যবস্থা করতে যাচ্ছেন পর্তুগাল ও ইউভেন্তুসের তারকা এই ফুটবলার। দিয়েছেন ১৫ কোটি ডলারের অনুদান। 

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকার মানুষজন দীর্ঘদিন ধরে স্থল, জল ও আকাশপথে ইজরায়েলের হাতে বন্দি। গাজা ভূখন্ডে ইজরায়েলের কর্তৃত্ব কায়েমের চেষ্টা ফিলিস্তিনকে পরিণত করেছে মৃত্যুপুরীতে। গুলি-বারুদের গন্ধে যুদ্ধবিধ্বস্ত পশ্চিম এশিয়ার দেশটিতে জনজীবন আক্ষরিক অর্থে বিপর্যস্ত। এর মধ্যেই চলে ধর্মকর্ম। পবিত্র রমজান মাসে আবারো ফিলিস্তিন জনগণের প্রতি তাঁর শ্রদ্ধা ও সহানুভুতি জ্ঞাপন করলেন পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার রোনালদো। দেশটির বিপর্যস্ত মানুষের ইফতারের জন্য দান করলেন মোটা অংকের অর্থ।

ফিলিস্তিনিদের প্রতি রোনালদোর ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ এবারই প্রথম নয়। এর আগেও যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির জনগণের জন্য কেঁদেছে সময়ের অন্যতম সেরা এই ফুটবলারের হৃদয়। ২০১২ ইসরায়েলের ‘পিলার অফ ডিফেন্স’ অপারেশনের পর গাজার শিশুদের পড়াশুনার সাহাযার্থে রোনালদো নিলামে তুলেছিলেন গোল্ডেন বুট পুরস্কার। এরপর ২০১৩ বিশ্বকাপ কোয়ালিফায়ারে পর্তুগাল-ইজরায়েল ম্যাচ শেষে ফিলিস্তিনিদের সমর্থনে বিপক্ষ ইসরালের ফুটবলারের সঙ্গে জার্সি বিনিময় করতে অস্বীকার করেন তিনি।

এরপর ইসরায়েলি আক্রমণে স্বজন হারানো পাঁচ বছর বয়সী আহমেদ দাউবাসা নামে শিশুর সঙ্গে ২০১৬ রিয়াল মাদ্রিদ ট্রেনিং ক্যাম্পে সাক্ষাৎ করেন রোনালদো। তার সঙ্গে ফটোসেশনের পর আহমেদের হাতে ক্লাবের তরফ থেকে উপহার দেওয়া জার্সি তুলে দেন তিনি। এছাড়াও নানা সময় নানাভাবে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির পাশে দাঁড়িয়েছেন এই তারকা ফুটবলার। এবার হাজির হলেন ইফতার নিয়ে। এমন উদ্যোগে বিশ্বজুড়ে প্রশংসায় ভাসছেন রোনালদো।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ