ঢাকা, মঙ্গলবার 22 October 2019, ৭ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

ভারতের দ্রুততম নারী দ্যুতি চাঁদের স্পষ্ট ঘোষণা- তিনি সমকামী

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:-একশ' মিটার দৌড়ে ভারতে রেকর্ড সৃষ্টিকারী নারী দৌড়বিদ দ্যুতি চাঁদ, যিনি ২০১৮ সালের এশিয়া কাপে দুটো রৌপ্য পদক জিতেছেন, জানিয়েছেন তিনি সমকামী এবং উড়িষ্যায় তার নিজের শহরেই তিনি তার নারী সঙ্গী খুঁজে পেয়েছেন।

এই প্রথম ভারতে কোনো তারকা ক্রীড়াবিদ খোলাখুলি জানালেন তিনি সমকামী।

তাকে উদ্ধৃত করে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস পত্রিকা লিখেছেন, "আমি এমন একজনকে খুঁজে পেয়েছি যে আমার হৃদয়-সঙ্গী। আমি বিশ্বাস করি কে কার সাথে জীবন কাটাবে সে সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার সবার রয়েছে। আমি সবসময়ই সমকামী সম্পর্কের অধিকারের পক্ষে কথা বলেছি।"

২৩ বছরের দ্যুতি চাঁদ তার নারী সঙ্গীর নাম পরিচয় বলেননি কারণ তিনি চাননা ঐ নারী "অযাচিতভাবে" মানুষের নজর কাড়ুক।

মিস চাঁদ আগামী বছরের টোকিও অলিম্পিকস এবং বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য অনুশীলন করছেন। তিনি বলেন, সে কারণে এখনই তার সঙ্গীর সাথে সংসার শুরুর কথা ভাবছেন না।

ভারতে এখনও সমকামী বিয়ের স্বীকৃতি নেই, তবে সমকামী বিয়ে 'অবৈধ' বা 'অপরাধ' এমন কোনো আইনও সেদেশে নেই। এছাড়া, গত বছর ভারতের সুপ্রিম কোর্ট ১৫৮ বছরের পুরনো একটি আইন রদ করে দেয় যে আইনে সমকামী সম্পর্ককে অপরাধ হিসাবে গণ্য করা হতো।

২০১৮ সালের এশিয়া কাপে ২০০ মিটার দৌড়ে রুপা জেতেন দ্যুতি চাঁদ

উড়িষ্যা রাজ্যের প্রত্যন্ত জাজপুর জেলার চাকা গোপালপুর নামে একটি গ্রামে এক তাঁতির ঘরে তার জন্ম হলেও খেলাধুলোর জগতে অসামান্য সাফল্য পেয়েছেন দ্যুতি চাঁদ।

তবে আন্তর্জাতিক অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশন (আইএএএফ) বছর পাঁচেক আগে নারী অ্যাথলেটদের শরীরে পুরুষ হরমোন টেস্টোস্টেরনের সর্বোচ্চ মাত্রা নির্ধারণ করে দেয়ায় দ্যুতি চাঁদের কেরিয়ার হুমকির মুখে পড়ে। ২০১৪ সালে কমনওয়েলথ গেমসে ভারতীয় দল থেকে দ্যুতি চাঁদকে বাদ দেওয়া হয়।

পরে দ্যুতি চাঁদ সুইজারল্যান্ডের লোসানে খেলাধুলো বিষয়ক মীমাংসা আদালতে আইএএফ-এর নতুন বেঁধে দেওয়া টেস্টোস্টেরনের মাত্রার বিরুদ্ধে আপীল করে সফল হন।

গত বছর আইএএএফ তাদের ঐ নতুন বিধি তুলে নেয়ায় দ্যুতি চাঁদ এশিয়া কাপে নারীদের ১০০ এবং ২০০ মিটার দৌড়ে অংশ নিতে সক্ষম হন।-বিবিসি বাংলা 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ