ঢাকা, মঙ্গলবার 22 October 2019, ৭ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

কুরআনের শিক্ষা ও মুসলমানদের আচরণে মুগ্ধ হয়ে ইসলাম গ্রহণ করলেন আমেরিকার খ্রিস্টান যাজক

পিবিএ ডেস্ক: মহানবী হজরত মহম্মদ (সাঃ) এর জীবনী পর্যালোচনা করলে দেখতে পাওয়া যায় যে, পবিত্র কুরআনের অলৌকিক আকর্ষণ এবং মানুষের প্রতি মহানবীর সদয় ব্যবহার ছিল ইসলামের প্রতি মানুষে আকৃষ্ট হওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ।বিশ্বব্যাপী ইসলাম প্রচার ও বিস্তারের ক্ষেত্রে এ দুটি বিষয় এখনো নিয়ামক হিসেবে কাজ করছে।

আমেরিকার এক খ্রিস্টান যাজক  স্যামুয়েল আর্ল শ্রপশায়ার ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন।৭০বছর বয়সী সাবেক এই যাজক সৌদি গণমাধ্যম সাবাককে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তার ধর্মান্তরের কারণ ব্যাখ্যা করে জানান পবিত্র ধর্মগ্রন্থ আল কোরআন অধ্যয়ন করতে গিয়ে তিনি এ ধর্মের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়েন।পরবর্তীতে আল কোরআনকে আরো গভীরভাবে অধ্যয়ন করতে তিনি সৌদি আরব গমন করেন।পবিত্র কোরআন তাকে এতটা আকৃষ্ট করে যে, তিনি এটি নিজের মাতৃভাষায় অনুবাদ করতে উদ্যোগী হন।এছাড়া সৌদি নাগরিকদের আতিথেয়তা এবং তাদের আচার-ব্যবহারও তাকে ইসলাম গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করে বলেও তিনি জানান।

তিনি আরও জানান, ২০১১ সালে প্রথম সৌদিতে যান পবিত্র কুরআনকে অনুবাদের উদ্দেশ্যে। সেই সময় মার্কিন গণমাধ্যমগুলোতে মুসলমানদেরকে নেতিবাচকভাবে উপস্থাপ করছিল। কিন্তু তিনি যখন সৌদি আরবে পৌছলেন তখন তিনি সম্পূর্ণ নতুন পরিবেশ লক্ষ করলেন। তার মনে এতোদিন মুসলিমদের সম্পর্কে যে ভুল ধারণা ছিল তার সম্পূর্ণ ভেঙে গেল। তিনি বলেন, আমি সেখানে তাদের আচার আচরণে মুগ্ধ হয়ে যাই। আমাকে অবাক করে তাদের ব‍্যবহার। আমি কোন ধর্মের লোক তারা বিবেচনা না করেই আমার সঙ্গে তারা সৎ ও ভালো ব‍্যবহার করে।

সৌদি আরবের জেদ্দায় তিনি কুরআনের অনুবাদ করার সময় সেখানকার মানুষের যে সৌহার্দ্যপূর্ণ আচরণ ও আতিথেয়তা পেয়েছেন তা কখনোই ভুলতে পারবেন না। সেই ব‍্যবহারও স‍্যামুয়েলকে মুগ্ধ করে এবং তখন থেকেই তার ইসলামের প্রতি ভালোলাগা ভালোবাসা তৈরি হয়। স‍্যামুয়েল বলেন, সৌদিরা শুধুমাত্র এক আল্লাহকেই স্রষ্টা হিসেবে তারই উপাসনা করে। তাদের মধ্যে একটা ভালো ধরনের নৈতিকতা রয়েছে।

স‍্যামুয়েল বর্তমানে সৌদি আরবেই রয়েছেন। তিনি শান্তি ও সংহতির জন্য মুসলমানদের কণ্ঠস্বর নামে অলাভজনক একটি সংগঠনও প্রতিষ্ঠা করেছেন।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ