ঢাকা, মঙ্গলবার 22 October 2019, ৭ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

ধানে আগুনের ঘটনা খতিয়ে দেখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:- ন্যায্যমূল্য না পেয়ে কৃষকের পাকা ধানক্ষেতে আগুন লাগানোর ঘটনা ‘সাবোটাজ’ কি না, তা খতিয়ে দেখতে প্রধানমন্ত্রী সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেছেন। বুধবার (২২মে) সকালে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের আরো বলেন, ‘আমাদের সরকার কৃষিবান্ধব। আমরা কৃষকদের জন্য যা করেছি, অতীতের কোনো সরকারই তা করেনি। কৃষকবান্ধব কর্মসূচির কারণেই বাংলাদেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। বাংলাদেশ এখন খাদ্যে উদ্বৃত্তের দেশ।’

ধানে আগুন ঘটনা খতিয়ে দেখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘কৃষকরা যাতে তাদের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য পান, সে জন্য সরকার সব ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে। এ অবস্থায় একজন কৃষক কেন তাঁর ধানক্ষেতে আগুন দিতে যাবেন, এটা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।’

ধানের ন্যায্যমূল্য না পেয়ে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার পাইকড়া গ্রামের আবদুল মালেক সিকদার নামের এক কৃষক গত ১২ মে নিজের পাকা ধানে আগুন দিয়ে অভিনব প্রতিবাদ জানিয়েছেন। বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ সংবাদ বেশ গুরুত্বের সঙ্গে প্রকাশ হলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে তা ভাইরাল হয়। দেশব্যাপী প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সংগঠন কৃষকের উৎপাদিত ধানের ন্যায্যমূল্য প্রদানের দাবি জানিয়ে আসছে।

এর আগে কৃষকদের ধানক্ষেতে আগুন লাগানোর ঘটনার তীব্র সমালোচনা করেছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। তিনিও ওই ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। ঘটনাটিকে ‘সাবোটাজ’ হিসেবে উল্লেখ করে খাদ্যমন্ত্রী বলেছেন, ‘সরকারকে বিপদে ফেলতে ও বিব্রত করতে একটি অশুভ চক্র কৃষকদের উসকানি দিয়ে ধানের জমিতে আগুন দিয়েছে। সরকারকে বিপদে ফেলতে একটি চক্র গণমাধ্যমকর্মীদের সেখানে বিশেষ উদ্দেশ্যে নিয়ে গিয়ে ধানক্ষেতে আগুনের ঘটনা ফলাও করে প্রচার করেছে।’

এসব চক্রান্ত সফল হবে না জানিয়ে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু যেমন কৃষকদের নিয়ে ভাবতেন, তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারও কৃষকবান্ধব। তাই এসব অশুভ চক্রান্ত ও পাঁয়তারা কোনোদিনই সফল হবে না।’ - পিবিএ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ