ঢাকা, সোমবার 17 June 2019, ৩ আষাঢ় ১৪২৬, ১৩ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

পদ্মা সেতুতে বসলো ১৩ তম স্প্যান

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: পদ্মা সেতুর ১৩ তম স্প্যান বসানো হয়েছে। এতে দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতুর মূল কাঠামোর ১৯৫০ মিটার।এভাবে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ সেতুতে বসাতে হবে ৪২টি পিলারের ওপর মোট ৪১টি স্প্যান।

শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ১৫০ ফুট দৈর্ঘ্যের ‘৩-বি’ নম্বরের স্প্যানটি মাওয়া প্রান্তের ১৪ ও ১৫ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয়েছে ১৩তম স্প্যানটি।

এর আগে গতকাল শুক্রবার পিলারের কাছাকাছি নিয়ে যাওয়া হলেও নদীতে তীব্র স্রোত থাকায় নোঙর করা যাচ্ছিল না বলে স্প্যানটি বসানো হয়নি। তবে, শনিবার সকাল ৮ টা থেকে স্প্যান বসানোর কাজ শুরু করে সেতু নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি। পরে ১০টার দিকে স্প্যানটি পিলারের ওপর পুরোপুরি বসানোর কাজ শেষ হয়।

পদ্মা সেতু প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম জানান, সকালে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ১৫০ ফুট দৈর্ঘ্যের ‘৩-বি’ নম্বরের স্প্যানটি মাওয়া প্রান্তের ১৪ ও ১৫ নম্বর খুঁটির ওপর বসানো হয়।

চলতি মাসের একেবারে শেষ দিকে আরেকটি স্প্যান বসানোর কথা রয়েছে। এটি বসানো হলে দুই কিলোমিটার ছাড়িয়ে যাবে স্বপ্নের পদ্মা সেতু।

এর আগে ১৪ নম্বর পিলারে লিফটিং হ্যাঙ্গার বসাতে জটিলতা তৈরি হওয়ায় কয়েক দফায় পেছানো হয় স্প্যান বসানোর তারিখ।

জাজিরাপ্রান্তে সেতুর ১৩৫০ মিটার ও মাওয়া প্রান্তের একটি স্থায়ী ও একটি অস্থায়ী স্প্যান মিলে মোট ৩০০ মিটার এবং সেতুর মাঝ বরাবর একটি স্প্যান অস্থায়ীভাবে বসানোয় সেতুর মোট ১৮০০ মিটার আগেই দৃশ্যমান আছে। তবে, স্প্যানগুলো ভিন্ন ভিন্ন পিলারে বসানোর কারণে দৃশ্যমান অংশগুলো বিচ্ছিন্নভাবে রয়েছে।

এর আগে ৬ মে ১২তম স্প্যানটি সেতুর ২০ ও ২১ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয়।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর সেতুর প্রথম স্প্যান বসানো হয়।

এরপর পর্যাক্রমে সেতুর ১২টি স্প্যান বসানো হয়। এখন পর্যন্ত জাজিরা প্রান্তে সেতুর এক হাজার ৩৫০ মিটার ও মাওয়া প্রান্তে একটি স্থায়ী ও একটি অস্থায়ী স্প্যান মিলে ৩০০ মিটার এবং সেতুর মাঝ বরাবর একটি অস্থায়ীভাবে স্প্যান বসানোয় সেতুর মোট এক হাজার ৮০০ মিটার দৃশ্যমান রয়েছে।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ