ঢাকা, শুক্রবার 31 May 2019, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৫ রমযান ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

উদ্বোধনী ম্যাচেই বড় স্কোর গড়েছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড 

রফিকুল ইসলাম মিঞা : বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচেই বড় স্কোর গড়েছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আগে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেটে ইংল্যান্ড গড়েছে ৩১১ রানের বড় স্কোর। ফলে বিশ্বকাপে জয় দিয়ে শুরু করতে হলে দক্ষিণ আফ্রিকাকে করতে হবে ৩১২ রান। গতকাল ওভালে চার হাফসেঞ্চুরিতে ৩১১ রানের স্কোর গড়ে স্বাগতিকরা। দলের পক্ষে হাফসেঞ্চুরি করেছেন জেসন রয়, জো রুট, বেন স্টোকস ও এউইন মরগান। সেঞ্চুরির আশা জাগিয়েছিলেন বেন স্টোকস। কিন্তু তিনিও পারেননি সেঞ্চুরি করতে। আউট হয়েছেন ৮৯ রান করে। এউইন মরগানের সঙ্গে চতুর্থ উইকেটে স্টোকস গড়েন ১০৬ রানের জুটি। এর ফলেই বড় স্কোর গড়ে ইংল্যান্ড। লুঙ্গি এনগিদির বলে হাশিম আমলার হাতে ধরা পড়েন স্টোকস। আউট হওয়ার আগে স্টোটক ৭৯ বলে ৯ বাউন্ডারিতে খেলেন ৮৯ রানের কার্যকরী ইনিংস। আরেক হাফসেঞ্চুরিয়ান মরগানও লম্বা করতে পারেননি ইনিংস। এই ইংলিশ অধিনায়ক ফিরে যান ৫৭ রানে। ইমরান তাহিরের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন তিনি। তবে সুবিধা করতে পারেননি জস বাটলার আর মঈন আলী। বাটলার ১৮ রান ও মঈন আলী ৩ রান করেন। দুজনকেই ফিরিয়েছেন লুঙ্গি এনগিদি। গতকাল বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচের শুরুতেই উত্তাপ ছড়ায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ইনিংসের দ্বিতীয় বলে প্রোটিয়ারা তুলে নেয় জনি বেয়ারস্টোর উইকেট। যদিও ওই ধাক্কা ইংলিশরা কাটিয়ে ওঠে জেসন রয় ও জো রুটের হাফসেঞ্চুরিতে। ১ রানে হারানো প্রথম উইকেটের পর রয়-রুট গড়েন ১০৬ রানের জুটি। ফর্মে থাকা এই ওপেনার আক্রমণাত্মক ব্যাটিং বাড়িয়ে নেন দলের রান। জেমন রয় পেয়ে যান ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১৫তম হাফসেঞ্চুরি। জয় রুটও পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে ব্যাট চালিয়েছেন। রয়ের সঙ্গে জুটি গড়ে পেয়ে যান ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৩১তম হাফসেঞ্চুরি। যাতে ইংল্যান্ড থাকে চালকের আসনে। তবে রয়ের আউটের পরপরই রুট ফিরে গেলে বিপদে পড়ে ইংল্যান্ড। রয় ৫৪ রান করে আন্দিলে ফেলুকাওয়ের বলে মিড-অফে ধরা পড়েন ফাফ দু প্লেসির হাতে। পরের ওভারে কাগিসো রাবাদার শিকার রুট। ৫১ রান করা রুট পয়েন্টে তালুবন্দী হন জেপি দুমিনির। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে প্রথম উইকেট দেখতে অপেক্ষাই করতে হয়নি ক্রিকেট ভক্তদের। দ্বিতীয় বলেই পড়েছে এবারের বিশ্বকাপের প্রথম উইকেট। ২০১৯ বিশ্বকাপের প্রথম উইকেট শিকারি ইমরান তাহির। ওভালের ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিংয়ে নামা প্রোটিয়া অধিনায়ক ফাফ দু  প্লেসি শুরুতেই দেন চমক। ইংল্যান্ডের পেস সহায়ক পিচে কিনা বোলিং আক্রমণ শুরু করলেন তিনি স্পিন দিয়ে। যে দক্ষিণ আফ্রিকার মূল শক্তি পেস বোলিং, সেখানে স্পিন দিয়ে শুরুটা ছিল আরও বিস্ময়কর। যদিও ডু-প্লেসির কৌশল কাজে লেগেছে শুরুতেই। ফর্মের তুঙ্গে থাকা লেগ স্পিনার ইমরান তাহির ইনিংস ও নিজের দ্বিতীয় বলেই তুলে নেন এবারের বিশ্বকাপের প্রথম উইকেট। ফেরান তিনি ইংল্যান্ডের ভয়ঙ্কর ওপেনার জনি বেয়ারস্টোকে। অফ স্টাম্পের বাইরে বাঁক খাওয়া বল রেয়ারস্টোর ব্যাট ছুঁয়ে গেলে গ্লাভসবন্দী করতে ভুল হয়নি উইকেটরক্ষক কুইন্টন ডি ককের। যাতে নিজের মুখোমুখি প্রথম বলে প্যাভিলিয়নে ফেরা বেয়ারস্টো রানের খাতাই খুলতে পারেন নি। দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে ইমরান তাহির আর কাগিসো রাবাদা নেন দুটি করে উইকেট। তবে লুঙ্গি এনগিদি একাই নিয়েছেন তিন উইকেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ