ঢাকা, মঙ্গলবার 11 June 2019, ২৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ৭ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

প্রথম পর্যায়ে ভর্তির সুযোগ পায়নি ৯৭ হাজার শিক্ষার্থী

স্টাফ রিপোর্টার : ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে কে কোন কলেজ ও মাদরাসায় ভর্তির জন্য নির্বাচিতদের ফল প্রকাশ করা হয়েছে গতকাল সোমবার। প্রথম পর্যায়ে মোট ১৩ লাখ ১৮ হাজার ৮৬৬ জন শিক্ষার্থী একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হয়েছে। এবার বৈধ আবেদন ছিল ১৪ লাখ ১৫ হাজার ৮৭৬ জনের। এই হিসাবে ৯৭ হাজার ১০ জন ভর্তিইচ্ছুক শিক্ষার্থী কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তির সুযোগ পায়নি। ভর্তি বতিলদের মধ্যে জিপিএ-৫ ধারী রয়েছে ৪ হাজার ৫৭২ জন।
আন্তঃশিক্ষা বোর্ড ও ঢাকা শিক্ষাবোর্ড সূত্রে জানা গেছে, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য সারাদেশে মোট ১৪ লাখ ১৫ হাজার ৮৭৬ জন আবেদন করেন। তার মধ্যে মোট ১৩ লাখ ১৮ হাজার ৮৬৬ জন তাদের পছন্দের কলেজে ভর্তির জন্য মনোনীত হয়েছেন। পছন্দের কলেজে আবেদন করেও ভর্তির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন ৯৭ হাজার ৮১০ জন। ভর্তি বঞ্চিতদের মধ্যে মধ্যে জিপিএ-৫ ধারী রয়েছে ৪ হাজার ৫৭২ জন।
এদের মধ্যে ঢাকা বোর্ডে ১ হাজার ৮৪৩ জন মেধাবী শিক্ষার্থী তাদের পছন্দমতো কলেজে ভর্তি হতে পারছেন না। পরের অবস্থানে রয়েছে রাজশাহী বোর্ড। মোট ১৪ হাজার ৫৩০ জন বঞ্চিত হয়েছেন। তাদের মধ্যে জিপিএ-৫ ধারী রয়েছে ১ হাজার ২৪৩ জন। তার পরের অবস্থানে কুমিল্লা বোর্ডে ৮ হাজার ৬৯৩, এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পাওয়া ৫২৩ জন শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য কোনো কলেজে মনোনীত হননি। একইভাবে সকল শিক্ষা বোর্ডেই ভর্তি বঞ্চিতের সংখ্যা রয়েছে।
জানা গেছে, প্রথম দফায় মনোনীতদের ১১ জুন থেকে ১৮ জুনের মধ্যে ভর্তি নিশ্চিত করতে হবে। আর এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে টেলিটক বা মোবাইল ব্যাংকিং রকেট ও শিওর ক্যাশের মাধ্যমে বোর্ডের রেজিস্ট্রেশন ফি ১৯৫ টাকা ফি পরিশোধ করতে হবে। এই প্রক্রিয়ায় ভর্তি নিশ্চিত করতে না পারলে মনোনয়ন বাতিল হয়ে যাবে। তার আবেদনটিও বাতিল হয়ে যাবে।
আগামী ১৯ ও ২০ জুন দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ করা হবে। আগামী ২১ জুন রাত ৮টার পর দ্বিতীয় পর্যায়ে নির্বাচিতদের ফল প্রকাশ করা হবে। ২২ ও ২৩ জুন দ্বিতীয় পর্যায়ের সিলেকশন নিশ্চায়ন করতে হবে। ২৪ জুন রাত ৮টার পর থেকে তৃতীয় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ করা হবে। আগামী ২৫ জুন রাত ৮টার পর তৃতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ করা হবে। এ বছর মোট এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণের সংখ্যা ১৭ লাখ ৪৯ হাজার ১৬৫ জন।
আগামী ২৭ থেকে ৩০ জুন ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে। ১ জুলাই থেকে একাদশ শ্রেণিতে ক্লাস শুরু হবে।
ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, মূলত এসএসসি ও সমমানের ফল অনুযায়ী যাদের যেসব প্রতিষ্ঠানে প্রাপ্যতা ছিল, সেখানে আবেদন না করে অন্য প্রতিষ্ঠানের আবেদন করার কারণেই এত শিক্ষার্থী এ পর্যায়ে কোনো প্রতিষ্ঠানে ভর্তির সুযোগ পায়নি। তবে দ্বিতীয় পর্যায়ে তারা আবেদন করতে পারবে এবং তারা আশা করছেন সব শিক্ষার্থীই ভর্তি হতে পারবে।
বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহায়তায় এবারও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এই ভর্তির কাজটি হচ্ছে। নিয়ম অনুযায়ী এখন নির্বাচিত প্রার্থীরা ১৮ জুনের মধ্যে ভর্তি হবে কি না, তা জানাতে হবে। যাচাই-বাছাইসহ অন্যান্য কাজ শেষে ২৭ থেকে ৩০ জুনের মধ্যে ভর্তির প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। একাদশ শ্রেণিতে ক্লাস শুরু হবে আগামী ১ জুলাই।
গত ১২ থেকে ২৩ মে পর্যন্ত অনলাইনে ও মুঠোফোনে খুদে বার্তায় এসএসসি পাস করা শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ভর্তির আবেদন নেয়া হয়। তবে শুধু পুনর্নিরীক্ষণে যাদের ফল পরিবর্তন হয়েছে, তারা ৩ ও ৪ জুন পুনরায় ভর্তির জন্য আবেদনের সুযোগ পেয়েছে। কমপক্ষে ৫টি এবং সর্বোচ্চ ১০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আবেদন করতে হয়েছে। শিক্ষার্থীর এসএসসি ও সমমানের ফল ও পছন্দক্রমের ভিত্তিতে একটি প্রতিষ্ঠান ভর্তির জন্য নির্বাচিত করে দেয়া হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ