ঢাকা, শুক্রবার 14 June 2019, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১০ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

সহিংসতা ঠেকাতে সর্বদলীয় সভা ডেকেছেন পশ্চিমবঙ্গের গভর্নর

১২ জুন, টাইমস অব ইন্ডিয়া : ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচন শেষ হয়ে যাওয়ার পরও থামছে না পশ্চিমবঙ্গের সহিংসতা। চলমান সহিংসতা বন্ধে রাজ্যের প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোকে নিয়ে একটি বৈঠক আহ্বান করেছেন রাজ্যের গভর্নর কেএন ত্রিপাঠি। রাজ ভবনের সূত্রের বরাতে টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়েছে, গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল চারটায় এই বৈঠকে উপস্থিত থাকার কথা এরই মধ্যে নিশ্চিত করেছে রাজ্যের ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস ও নতুন উত্থান ঘটানো দল বিজেপি।

২০১১ সালে পশ্চিমবঙ্গে তিন দশকের বাম শাসনের অবসান ঘটায় মমতা বন্দোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেস। আর এবারের লোকসভা নির্বাচনে এভারতের কেন্দ্রের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির কাছে বড়সড় ধাক্কা খেয়েছে দলটি। রাজ্যের ৪২টি আসনের মধ্যে ১৮টিতে জয় পেয়েছে বিজেপি। নির্বাচনি প্রচারণার সময়ে ছড়ানো রাজনৈতিক সহিংসতার উত্তাপ ভোটগ্রহণ শেষ হলেও থামেনি।

এমন পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার রাজ ভবনে বৈঠকে বসার আহ্বান জানিয়ে পশ্চিমবঙ্গের প্রধান চারটি রাজনৈতিক দলকে চিঠি পাঠিয়েছেন রাজ্যের গভর্নর কেএন ত্রিপাঠি। তৃণমূল কংগ্রেস, বিজেপি ছাড়াও চিঠি পাঠানো হয়েছে সিপিএম ও কংগ্রেসকে। বৈঠকে অংশ নেওয়ার কথা নিশ্চিত না করলেও গভর্নরের আমন্ত্রণ পাওয়ার কথা নিশ্চিত করেছে সিপিএম ও কংগ্রেস।

রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেসের এক সিনিয়র নেতা বলেছেন, ‘আমরা আগামীকাল গভর্নরের সর্বদলীয় বৈঠকে যাবো। সাংবিধানিক পদধারী ব্যক্তি গভর্নর’। গভর্নরের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন বিজেপি’র পশ্চিমবঙ্গ শাখার প্রেসিডেন্ট দিলিপ ঘোষ। তবে তিনি মনে করেন রাজ্য সরকারই এই উদ্যোগ নিতে পারতো।  

সর্বদলীয় সভা আহ্বানের আগে গত সোমবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করেন পশ্চিমবঙ্গের গভর্নর ত্রিপাঠি। রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে তাদের বিস্তারিত জানিয়েছেন তিনি। পশ্চিমবঙ্গে রাষ্ট্রপতির শাসন জারির সম্ভাবনা নিয়ে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বৈঠকে এই বিষয়ে কোনও আলোচনা হয়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ