ঢাকা, বুধবার 19 June 2019, ৫ আষাঢ় ১৪২৬, ১৫ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

অস্ট্রেলিয়ায় পুরনো বহু ভাষা ইতোমধ্যেই হারিয়ে গেছে  বিপন্ন প্রায় ১শ’ ভাষা

১৮ জুন, বিবিসি : অস্ট্রেলিয়াতে ইউরোপীয়দের বসবাসের কারণে পুরনো বহু ভাষা ইতোমধ্যেই হারিয়ে গেছে। আরো প্রায় ১’শ ভাষা বিপন্ন, যা হারিয়ে যাবার পথে। এরকম একটি ভায়া নিরঅং। পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ায় হাজার হাজার বছর ধরে মানুষের মুখে মুখে চালু ছিলো এই ভাষাটি। কিন্তু বর্তমানে হাতে গোণা কয়েকজনই এভাষাতে কথা বলতে পারেন। আর একারণেই ভাষাটি বাঁচাতে শুরু হয়েছে তোরজোর।

ভাষাটি এখন এতই বিপন্ন হয়ে পড়েছে যে কোনোন্নন্যা’সহ বেশ কয়েকটি শহরে শিশুদের নিরঅং ভাষা শেখানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। হাজার হাজার বছর ধরে এই ভাষাটিই ছিলো এই অঞ্চলের প্রধান ভাষা। নিরিঅং ভাষাতে এখনো যে কয়েকজন কথা বলতে পারেন তাদের একজন ডেভিট নিউরি। তিনি বলেন, এই জায়গাটির নাম মিরিওয়ান। এখান থেকেই নিরিঅং ভাষাটি এসেছে। চার পাশে যা আছে সবই ভাষা। এখানে এমন অনেক জিনিস আছে যা কিনা নিরিঅং ভাষা ছাড়া অন্য কোনো ভাষা এমনকি ইংরেজিতেও ব্যাখ্যা করা যায় না।

পশ্চিম অস্ট্রেলিয়াতে : উরোপীয়দের বসতি গড়ে উঠার কারণে এই অঞ্চল থেকে আদিবাসীদের বহু ভাষা বিলুপ্ত হয়ে গেছে। ভাষা শিক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিসা পালন করছে মিলিয়া ল্যাঙ্গুয়েজ সেন্টার। তার একজন কর্মকর্তা ও গবেষক লুট পুলস্কপ বলছেন, আধুনিক অস্ট্রেলিয়াতে সংখ্যালঘুদের যে কোনো ভাষা টিকে থাকা কঠিন। যেখানে কোনো ভাষার আধিপত্য থাকে সেখানেই ক্ষুদ্র আদিবাসীদের বেঁচে থাকার জন্য সংগ্রাম করতে হয়।

নিরিঅং ভাষাটিকে ধরে রাখতে সেখানকার স্থানীয় রেডিওতে চালু করা হয়েছে বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান। কিন্তু গবেষক লুট পুলস্কপ বলছেন, এই ভাষা টিকে থাকা নির্ভর করছে পরবর্তী প্রজন্মের ওপর। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গবেষণায় দেখা গেছে যেসব আদিবাসী তাদের পূর্ব পুরুষের ভাষা শিখেছেন তারাই তাদের পরবর্তী জীবনের বেশি সফল হয়েছেন। নিরিঅং ভাষা ছড়িয়ে দেয়ার যে চেষ্টা চলছে তার মূল কারণ হলো এই কার্যক্রম উন্নত জীবনের জন্য অনেক সহায়ক হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ