ঢাকা, শনিবার 22 June 2019, ৮ আষাঢ় ১৪২৬, ১৮ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

যুক্তরাজ্যে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার চূড়ান্ত লড়াইয়ে জনসন-হান্ট

 

২১ জুন, বিবিসি : বাকি প্রার্থীদের পেছনে ফেলে কনজারভেটিভ পার্টির নিবন্ধিত সমর্থকদের কাছে পাঠানো ব্যালটে নিজেদের নাম নিশ্চিত করেছেন যুক্তরাজ্যের সাবেক-বর্তমান দুই পররাষ্ট্র মন্ত্রী।

টেরিজা মে-র স্থলাভিষিক্ত ঠিক করতে টোরি সাংসদদের সিরিজ ভোট শেষে বরিস জনসন ও জেরমি হান্টই শীর্ষ দুটি স্থান দখল করেছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

বৃহস্পতিবার চতুর্থ ও পঞ্চম দফার ভোটে একে একে বাদ পড়েছেন শীর্ষ চারে থাকা সাজিদ জাভিদ ও মাইকেল গোভ।

শীর্ষ দুই প্রতিদ্বন্দ্বির একজনকে বেছে নিতে এখন কনজারভেটিভ পার্টির এক লাখ ৬০ হাজার বা তারও বেশি নিবন্ধিত সদস্য ভোট দেবেন।

নির্বাচিত ব্যক্তি কনজারভেটিভ পার্টির শীর্ষ পদে বসার পাশাপাশি টেরিজা মে-র মেয়াদের বাকি অংশ যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ পাবেন।

কনজারভেটিভ পার্টির এ বিস্তৃত ভোটের ফল জুলাইয়ের শেষ দিকে জানা যেতে পারে।

নেতৃত্ব দৌড়ে ছিটকে পড়াদের অনেকেই বরিস জনসনের প্রচারণা দলের বিরুদ্ধে ‘কৌশলগত ভোট বিনিময়ের’ অভিযোগ তুলেছে।

সম্ভাবনাময় প্রার্থীদের ছেঁটে ফেলতে প্রতিদ্বন্দ্বিদের চেয়ে অনেক ব্যবধানে এগিয়ে থাকা জনসনের সমর্থকদের একাংশ তুলনামূলক দূর্বল প্রার্থীদের ভোট দিয়েছেন বলেও ভাষ্য তাদের।

সাবেক পররাষ্ট্র মন্ত্রীর প্রচারণা শিবির এ ধরনের কোনো কিছুর সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

টোরি সাংসদদের ফাইনাল রাউন্ডের ভোটে দ্বিতীয় হওয়া হান্ট চূড়ান্ত লড়াইয়ে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। “সামনের দিনগুলোতে জনসনকে তার জীবনের সেরা লড়াইয়ে নামতে হবে,” বলেছেন তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ