ঢাকা, শনিবার 22 June 2019, ৮ আষাঢ় ১৪২৬, ১৮ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

সৌদি আরবের কাছে ট্রাম্পের অস্ত্র বিক্রি আটকে দিল মার্কিন সিনেট

২১ জুন, এএফপি, রয়টার্স : সৌদি আরবের কাছে বিলিয়ন-বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র বিক্রি করার জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যে উদ্যোগ নিয়েছিলেন সেটিকে আটকে দিয়েছে দেশটির সিনেট। ইরানের দিক থেকে সৌদি আরবের হুমকি আছে - এ কথা উল্লেখ করে গতমাসে কংগ্রেসকে পাশ কাটিয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সৌদি আরবের কাছে আট বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র বিক্রির চেষ্টা করেছেন।

কিন্তু বৃহস্পতিবার দুই দলের ঐক্যমত্যের ভিত্তিতে সিনেট অস্ত্র বিক্রি আটকে দেবার জন্য তিনটি প্রস্তাব পাশ করেছে। সিনেটে রিপাবলিকানদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে।

 প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছেন, তিনি এই প্রস্তাবের উপর ভেটো দেবেন।

 ডেমোক্রেট-নিয়ন্ত্রিত হাউজ অব রেপ্রেজেনটেটিভ বা প্রতিনিধি পরিষদও অস্ত্র বিক্রির এ উদ্যোগ আটকে দেবার সম্ভাবনা আছে। বিশ্লেষকরা বলেছেন, এটা মোটামুটি নিশ্চিত যে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ভেটো উল্টে দেবার জন্য কংগ্রেসে প্রয়োজনীয় সংখ্যক ভোট নেই।

 সৌদি আরব ছাড়াও এ চুক্তির আওতায় সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং জর্ডানের কাছে অস্ত্র বিক্রি করা হবে। মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিরতার কথা উল্লেখ করে ট্রাম্প গতমাসে জরুরী ভিত্তিতে অস্ত্র বিক্রি করতে চেয়েছেন।

কিন্তু ট্রাম্পের এ উদ্যোগের তীব্র বিরোধিতা আসে। কারণ, বিরোধীতাকারীরা আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন যে এসব অস্ত্র ইয়েমেনে ব্যবহার করবে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট। এদিকে অস্ত্র বিক্রির উদ্যোগ আটকে দেবার কয়েক ঘণ্টা আগে হরমুজ প্রণালীতে একটি মার্কিন ড্রোন গুলি করে ভূপাতিত করেছে ইরান। এর ফলে ট্রাম্প প্রশাসন জোরালো যুক্তি তুলে ধরতে পারবে যে মধ্যপ্রাচ্যে তাদের বন্ধু রাষ্ট্রগুলির অস্ত্র প্রয়োজন।

ইয়েমেনে সৌদি আরব যেভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে সেটি নিয়ে কংগ্রেস সদস্যরা তীব্র সমালোচনা করেছে। এছাড়া গত বছরের অক্টোবরে তুরস্কের ইস্তানবুলে সৌদি আরবের সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যার ঘটনায় তীব্র সমালোচনা রয়েছে সৌদি আরবের বিরুদ্ধে।

গত বুধবার জাতিসঙ্ঘ বলেছে, জামাল খাশোগিকে হত্যার জন্য সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা দায়ী।

অস্ত্র বিক্রির উদ্যোগ কংগ্রেসে আটকে যাবার পর হোয়াইট হাউজ এক বিবৃতিতে বলেছে, এর মাধ্যমে এই বার্তা যাবে যে আমেরিকা তার সহযোগী এবং বন্ধুদের এমন এক সময়ে ত্যাগ করছে যখন তাদের প্রতি ইরানের হুমকি বাড়ছে।

রিপাবলিকান সিনেটর জিম রিচ বলেন, অস্ত্র বিক্রির উদ্যোগ আটকে দেবার অর্থ হচ্ছে ইরানের আগ্রাসনকে পুরস্কৃত করা।

অন্যদিকে ডেমোক্রেটিক সিনেটের রবার্ট মেনেনডেজ বলেন, এই ভোটের মাধ্যমে এ কথা মনে করিয়ে দেয়া হলো যে কংগ্রেসকে উপেক্ষা করা যাবে না। রিপাবলিকান সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম, যিনি সাধারণত প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে সমর্থন করেন, তিনিও অস্ত্র বিক্রির বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন।

তিনি বলেন, “আমার সাথে সৌদি আরবের সম্পর্ক চিরদিনের মতো পরিবর্তিত হয়ে গেছে।”

“সৌদি আরবের কাছে অস্ত্র বিক্রির বিরুদ্ধে ভোট দেবার কারণ হচ্ছে, আমি একটি বার্তা দিতে চাই। আমি বলতে চাই, তোমরা যেভাবে কাজ করছো যদি এটা চালিয়ে যেতে থাক তাহলে তোমাদের সাথ কৌশলগত সম্পর্কের কোনো জায়গা নেই,” ভোটাভুটির আগে বলছিলেন লিন্ডসে গ্রাহাম। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ