ঢাকা, সোমবার 01 July 2019, ১৭ আষাঢ় ১৪২৬, ২৭ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

রুশ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিনলেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবেন না ট্রাম্প--এরদোগান

৩০ জুন, আল অ্যারাবি : তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান দাবি করেছেন, রুশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ক্রয় করায় যুক্তরাষ্ট্র তুরস্কের ওপর কোনও নিষোধাজ্ঞা আরোপের পরিকল্পনা গ্রহণ করেনি। এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছিলেন, তুরস্ককে সমঅধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়। তবে ট্রাম্পের পক্ষ থেকে নিষেধাজ্ঞা আরোপের সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া হয়নি।

২০১৭ সালের ডিসেম্বরে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা কেনার জন্য চুক্তি সই করেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট। কিন্তু রাশিয়ার কাছ থেকে অস্ত্র কেনায় ক্ষুব্ধ ছিলো তুরস্কের সাবেক মিত্র যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন সরকার শুরু থেকেই এ চুক্তির তীব্র বিরোধিতা করে তিন ধরনের নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি দিয়ে রেখেছে।

জি-২০ সম্মেলনে ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাতের পর এরদোয়ান বলেছেন. জুলাইয়ের প্রথমার্ধেই এস-৪০০-গুলো তুরস্কেকে হস্তান্তর করা হবে। আর ট্রাম্প তাকে সরাসরি বলেছেন যে তুরস্কের ওপর কোনও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে না। এরদোয়ান বলেন, আমি ব্যক্তিগত আলাপেই শুনেছি যে এটা বে না। আমরা যুক্তরাষ্ট্রের কৌশলগত মিত্র। আর আমরা থাকতে কেউই তুরস্কের সার্বভৌম অধিকারের ওপর আঘাত আনতে পারবে না। সবারই এটা জানানো উচিত।

এর আগে ট্রাম্পকে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি জানান বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলছে। তবে এটা দ্বিপাক্ষিক। তাই দুই পক্ষই বিকল্প সমাধান খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে।

খাশোগি হত্যা রহস্য উন্মোচনে সৌদী প্রিন্সের প্রতি আহ্বান : সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যার রহস্য উন্মোচনে সৌদি প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান। শনিবার জাপানের ওসাকায় শিল্পোন্নত দেশগুলোর জোট জি-২০ সম্মেলনের ফাঁকে সংবাদ সম্মেলনে দেওয়া বক্তৃতায় খুনিদের পরিচয় প্রকাশেরও দাবি জানান তিনি। এরদোয়ান বলেন, দেশটিতে এখনও অনেক হত্যা রহস্য অপ্রকাশিত রয়েছে।

গত বছরের গত অক্টোবরে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অবস্থিত সৌদি কনস্যুলেটে নির্মমভাবে খুন হন সৌদি ভিন্ন মতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাশোগি। তুর্কি গোয়েন্দারা জানান, এ হত্যাকা- সৌদি আরবের উচ্চ পর্যায়ের নির্দেশেই হয়েছে বলে সিআইএ নিশ্চিত করেছে তাঁদের। তদন্তের পর জাতিসংঘ জানায়, সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের জন্য সৌদি সরকার দায়ী। সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের প্রত্যক্ষ ভূমিকা নিয়ে আরো তদন্তের জন্য জোর সুপারিশ করে  জাতিসংঘ।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানও ওই হত্যাকাণ্ডের জন্য সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে দায়ী করেছেন।

এরদোয়ান বলেন, ‘হত্যাকা-ের আগে ১৫ জনের একটি দল ইস্তাম্বুলে পৌঁছায়। এরপরই ওই হত্যাকা- সংঘটিত হয়। এতে ওই ১৫ জনের দলটি জড়িত। সুতরাং, হত্যাকারী খোঁজার জন্য অন্যত্র যাওয়ার কোনো দরকার নেই।’ 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ