ঢাকা, বুধবার 03 July 2019, ১৯ আষাঢ় ১৪২৬, ২৯ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

এএফসি কাপে আবাহনীর প্রতিপক্ষ উত্তর কোরিয়ার ক্লাব

স্পোর্টস রিপোর্টার: এএফসি কাপের আন্ত আঞ্চলিক সেমিফাইনালে বাংলাদেশের আবাহনী লিমিটেডের প্রতিপক্ষ উত্তর কোরিয়ার এপ্রিল টুয়েন্টি ফাইভ ক্লাব। প্রথমবারের মতো এএফসি কাপের দ্বিতীয় পর্ব বা আন্তঃআঞ্চলিক সেমিফাইনাল খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে আবাহনী লিমিটেড। গতকাল মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত ড্রয়ে বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়নদের প্রতিপক্ষ হিসেবে চূড়ান্ত হয়েছে উত্তর কোরিয়ার এপ্রিল টুয়েন্টি ফাইভ ক্লাব। হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে আগস্টে অনুষ্ঠিত হবে আন্ত আঞ্চলিক সেমিফাইনালের দুইটি ম্যাচ। ২১ আগস্ট ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে প্রথম ম্যাচটি। ফিরতি পর্ব ২৮ আগস্ট কোরিয়ায়।

এত দিন এএফসি কাপে দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলে একক রাজত্ব ছিল ভারতীয় ক্লাব বেঙ্গালুরু এএফসির। ২০১৭ সাল থেকে এই অঞ্চলের ক্লাবগুলোকে এএফসি কাপের প্রথম পর্বে নিজেদের মধ্যে খেলার সুযোগ করে দেয় এশিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা। প্রথম দুবারই চ্যাম্পিয়ন হয়ে দ্বিতীয় পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছিল বেঙ্গালুরু। এবারই ভারতের দুই ক্লাবকে পেছনে ফেলে তাদের রাজত্ব দখল করে নিয়েছে বাংলাদেশের আবাহনী। ৬ ম্যাচে ৪ জয় ও ১ ড্রয়ের বিপরীতে একটি মাত্র ম্যাচ হেরে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ পর্বে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ প্রতিনিধিরা। আবাহনীর প্রতিপক্ষ এপ্রিল টুয়েন্টি ফাইভ ক্লাবের পারফরমেন্স ছিল আরও দুর্দান্ত। ৬ ম্যাচে ৫ জয়ের বিপরীতে তারা ম্যাচ হেরেছে মাত্র একটি। ঘরোয়া লিগে এগারোর চ্যাম্পিয়ন হওয়া কোরিয়ান ক্লাবটিতে নেই কোনো বিদেশি খেলোয়াড়। প্রথম পর্বে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬ গোল করেছেন স্ট্রাইকার কিম ইউ সং।

এপ্রিল টুয়েন্টি ফাইভ বাংলাদেশের ফুটবলে খুব পরিচিত প্রতিপক্ষ । ১৯৮৮ সালে সে সময়ের এশিয়ান ক্লাব কাপ চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনাল পর্বে এই এপ্রিল টুয়েন্টি ফাইভকে ১-০ গোলে হারিয়েছিল মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। মালয়েশিয়ার পাহাংয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছিল ম্যাচটি। মোহামেডানই ১৯৯০ এশিয়ান ক্লাব কাপের চূড়ান্তপর্বে গোলশূন্য ড্র করে উত্তর কোরীয় ক্লাবটির সঙ্গে। ১৯৯১ সালের জুলাইয়ে ঢাকায় অনুষ্ঠিত চূড়ান্তপর্বে এপ্রিল টুয়েন্টি ফাইভ তৃতীয় হয়েছিল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ