ঢাকা, বৃহস্পতিবার 11 July 2019, ২৭ আষাঢ় ১৪২৬, ৭ জিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার অসৎ উদ্দেশ্যেই মেয়াদ বাড়ানো হলো -ডা. শফিকুর রহমান

দ্রুত বিচার আইনের মেয়াদ আরো ৫ বছর বাড়িয়ে গত ৯ জুলাই জাতীয় সংসদে বিল পাশ করার প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান বলেন, দ্রুত বিচার আইনের মেয়াদ আরো ৫ বছর বাড়িয়ে জাতীয় সংসদে বিল পাশ করায় আমি প্রতিবাদ জানাচ্ছি। দ্রুত বিচার আইনের মেয়াদ আরো ৫ বছর বাড়ানোর কোনো যুক্তি নেই। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার অসৎ উদ্দেশ্যেই দ্রুত বিচার আইনের মেয়াদ বাড়ানো হলো।
গতকাল বুধবার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে দমন করার হীন উদ্দেশ্যেই এ আইনের মেয়াদ বার বার বাড়ানো হচ্ছে। সরকার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতির অজুহাত দেখিয়ে আইনটির মেয়াদ আরো ৫ বছর বৃদ্ধি করলেও কার্যত, দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির কোনো উন্নতিই লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। বরং আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির ক্রমেই অবনতি হচ্ছে। হত্যা, গুম-খুন, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, অপহরণ, ধর্ষণ, নির্যাতন, দখলদারি পূর্বের যে কোন সময়ের চাইতে বেড়েছে। কাজেই দ্রুত বিচার আইনের মেয়াদ বৃদ্ধি সম্পূর্ণ অন্যায় ও অযৌক্তিক। এ আইনের অপব্যবহার করে সরকার বিরোধী দলগুলোর নেতা-কর্মীদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে তাদের ঐ আইনে শাস্তি দিয়ে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করছে এবং সরকারের অবৈধ শাসন পাকাপোক্ত করার ষড়যন্ত্র করছে।
তিনি উল্লেখ করেন, বর্তমানে অনির্বাচিত সরকারের হাতে এ আইনটি কেবল মাত্র মানবাধিকার হরণের কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে। তাই এ আইনটি অবিলম্বে বাতিল করতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ