ঢাকা, শনিবার 19 October 2019, ৪ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

কোহলির অধিনায়কত্ব নিয়ে প্রশ্ন সাচিন, সৌরভের

সংগ্রাম অনলাইন : ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি ও ভি ভি এস লক্ষ্ণণ প্রশ্ন তুলেছেন যে কেন ধোনিকে সাত নম্বরে ব্যাট করতে পাঠানো হল? এটিকে একটি বড়সড় কৌশলগত ভুল বলে তারা মন্তব্য করেছেন।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনালে হার্দিক পান্ডিয়া আর দীনেশ কার্তিককে ধোনির আগে ব্যাট করতে পাঠানো হয়েছিল। তার আগেই পাঁচ রানে তিন উইকেট হারায় ভারত।

খুব অল্প সময়ের মধ্যেই ২৪ রানে চার উইকেট হারানোর কারণে মাত্র ২৪০ রানের টার্গেটও তখন অসম্ভব বলে মনে হচ্ছিল।

ভি ভি এস লক্ষ্মন হতাশ গলায় বলছিলেন, "ধোনিকে পান্ডিয়া আর দীনেশ কার্তিকেরও আগে ব্যাট করতে পাঠানো উচিত ছিল। এটা ভুল স্ট্র্যাটেজি নেওয়া হল।"

"ধোনির কাছে কাজটা একেবারে অসম্ভব ছিল না। ২০১১র বিশ্বকাপের ফাইনালে ধোনি যুবরাজ সিংয়েরও আগে চার নম্বরে ব্যাট করেছিল। সেই বিশ্বকাপটা ভারতের ঘরেই এসেছিল।"

২০১১'র বিশ্বকাপ ফাইনালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ধোনি যখন ব্যাট করতে নেমেছিলেন, তার আগে বীরেন্দ্র সেহবাগ, সাচিন টেন্ডুলকার আর ভিরাট কোহলির গুরুত্বপূর্ণ উইকেটগুলো হারিয়ে ফেলেছিল ভারত।

সেম্যাচে অনেকেই বিস্মিত হয়েছিলেন ধোনির ওই সিদ্ধান্ত দেখে। কিন্তু সেদিন ৭৯ বলে ৯১ রানের একটা অসাধারণ ইনিংস খেলেছিলেন ধোনি।

ভারত ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যে আগের একটি ম্যাচের দৃশ্য

২০১৮ সালে দেওয়া একটা সাক্ষাতকারে ধোনি ব্যাখ্যা করেছিলেন যে কেন সেদিন তিনি যুবরাজ সিংয়ের আগে ব্যাট করতে নেমেছিলেন।

"শ্রীলঙ্কার বেশীরভাগ বোলারই চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে আই পি এলে খেলতেন। ওদের বোলিং তাই আমার ভীষণ পরিচিত ছিল।"

"তার ওপরে তখন মুরলিধরন বল করছিল। ওকে নেট প্র্যাক্টিসে বহুবার খেলেছি। তাই ওর বল খেলতে কোনও অসুবিধাই হবে না বলে নিশ্চিত ছিলাম।"

"এটাই আমার সেদিন আগে ব্যাট করতে নামার পিছনে সবথেকে বড় কারণ ছিল," জানিয়েছিলেন মহিন্দর সিং ধোনি।

সৌরভ গাঙ্গুলি অবশ্য মনে করেন যে বিষয়টা শুধু ধোনির আগে ব্যাটিং করা নয়।

"ধোনি যদি আগে ব্যাট করতে নামত, তাহলে অন্যদিকে যে তরুণ ব্যাটসম্যানরা খেলছিল, তাদেরও নিজের খেলাটা খেলতে বলত এম এস", বলেন সৌরভ গাঙ্গুলি।

"রিশভ প্যান্ত অনেকটা সেট হয়ে গিয়েছিল, কিন্তু তাকে সঙ্গ দেওয়ার মতো একজন ব্যাটসম্যানের দরকার ছিল। ধোনি সঙ্গে থাকলে যেরকম শট নিয়ে আউট হল রিশভ, সেই ধরণের শট খেলতে বারণ করত নিসন্দেহে। ইংল্যান্ডের ম্যাচেও রিশভকে গাইড করেছিল ধোনিই।"

সাচিন টেন্ডুলকারও মনে করেন যে ধোনিকে সাত নম্বরে ব্যাট করতে পাঠিয়ে বড় ভুল করেছেন ভিরাট কোহলি।

সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের কাছে ১৮ রানে হেরে গিয়েছে ভারত

"এরকম একটা সময়ে একজন অভিজ্ঞ খেলোয়াড়ের দরকার ছিল। রিশভ প্যান্তকে সঙ্গে ক্রীজে থাকলে ওকে ওইভাবে ব্যাটিং করতে কিছুতেই দিত না ধোনি। জাডেজার সঙ্গে অন্যদিকে ধোনি ছিল। দুজনের মধ্যে মাঝে মাঝেই কথা হচ্ছিল। এম এসের পরামর্শ মতোই ওরা দুজনে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিল অনেকটা। ধোনিকে সাত নম্বরে পাঠানো একেবারেই অনুচিত হয়েছে," বলছিলেন সৌরভ।

তার কথায়, "ফিনিশার হিসাবে ধোনির খেলা নিয়ে আমি ভীষণ শ্রদ্ধাশীল। ও চার ছয় মারতে পারল কী না, সেটা বড় ব্যাপার না। ওয়ানডে ম্যাচ কীভাবে জিততে হয়, সেটা ও খুব ভাল জানে। সেইভাবেই খেলছিল ও।"

গত বছর দেড়েক ধরে ভারতীয় নির্বাচকরা মিডল অর্ডারে কোনও ভাল ব্যাটসম্যান তুলে আনতে পারেন নি।

ভিভিএস লক্ষ্মন মনে করেন যে সবসময়ে রোহিত শর্মা আর ভিরাটের ওপরে ভরসা করে থাকা উচিত নয়।

সেমিফাইনালে হারের পর সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে প্রাক্তন ক্রিকেটাররা ওই একটা ভুল সিদ্ধান্তকেই মূলত দায়ী করছেন এখন। সূত্র: বিবিসি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ