ঢাকা, শুক্রবার 12 July 2019, ২৮ আষাঢ় ১৪২৬, ৮ জিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

নন-লাইফ বিমার তিনটির বেশির একাউন্ট নয় ---আইডিআরএ

 

স্টাফ রিপোর্টার: দেশে যেসব নন-লাইফ বিমা কোম্পানির তিনটির বেশি ব্যাংকে একাউন্ট আছে, তাদেরকে চলতি মাসের মধ্যে অতিরিক্ত একাউন্ট বন্ধ করতে হবে। সম্প্রতি বিমা কোম্পানিগুলোর নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ) এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা দিয়েছে।

সম্প্রতি আইডিআরএ-এর চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান পাটোয়ারির স্বাক্ষরিত এক সার্কুলারের মাধ্যমে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সার্কুলারে ৯ দফা নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। বলা হয়েছে, যদি নন-লাইফ বিমা কোম্পানিগুলো নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে এসব নির্দেশনা মানতে ব্যর্থ হয় তবে সংশ্লিষ্ট বিমা কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সূত্র জানায়, নন-লাইফ বিমা কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে নানা ধরনের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সংস্থাটি এ নির্দেশনা দিয়েছে। বিশেষ করে সরকার নন-লাইফ বিমা কোম্পানিগুলোতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, এখন থেকে নন-লাইফ বিমা কোম্পানি তাদের দাবি, কমিশন ও বেতন ভাতার টাকা নগদে পরিশোধ করতে পারবে না। এছাড়া নন-লাইফ বিমা কোম্পানিগুলো আদায়কৃত প্রিমিয়াম জমা করার জন্য তিনটির বেশি তফসিলি ব্যাংক বাছাই করতে পারবে না। এ তিনটি ব্যাংকে একটি করে মোট তিনটি একাউন্টের বাইরে অতিরিক্ত অ্যাকাউন্ট খোলা বা পরিচালনা করা যাবে না। এখন যে সব কোম্পানির তিনটির বেশি একাউন্ট রয়েছে তাদের চলতি জুলাই মাসের মধ্যে সেই হিসাব বন্ধ করে দিতে হবে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, নন-লাইফ বিমা কোম্পানিগুলো আদায়কৃত প্রিমিয়াম জমা করার জন্য যেকোনো তিনটি তফসিলি ব্যাংকের প্রতিটিতে একটি করে সর্বোচ্চ তিনটি হিসাব রাখতে পারবে। কোনোক্রমেই একটি ব্যাংকে তিনটির বেশি ব্যাংক হিসাব প্রিমিয়াম জমা করার জন্য খোলা যাবে না। বর্তমানে প্রিমিয়াম জমা করার জন্য প্রয়োজন অনুযায়ী তিনটি ব্যাংক হিসাব রেখে বাকিগুলো আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে বন্ধ করতে হবে। মূলধন সংরক্ষণের জন্য একটি ব্যাংক হিসাব এবং অন্যান্য আয় জমা করার জন্য অপর একটি ব্যাংক হিসাব রাখা যাবে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, দাবি পরিশোধের জন্য একটি ও ব্যবস্থাপনা ব্যয়ের জন্য একটি ব্যাংক হিসাব রাখতে হবে। সেক্ষেত্রে প্রিমিয়াম জমা করার হিসাব থেকে প্রয়োজনীয় অর্থ ওই হিসাব দুটিতে ফান্ড ট্রান্সফার করে নিতে হবে।

 কোনো অবস্থাতেই দাবি, কমিশন ও বেতন ভাতার টাকা নগদে পরিশোধ করা যাবে না। শাখা কার্যালয়ের খরচ নির্বাহের ক্ষেত্রে প্রতিটি শাখায় একটি করে ব্যাংক হিসাব রাখা যাবে। সেক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় প্রিমিয়াম জমা করার হিসাবগুলো থেকে ক্রসড চেক বা ফান্ড ট্রান্সফার ব্যতিত অন্য কোনো অর্থ ওই ব্যাংক হিসাবগুলোয় জমা করা যাবে না। শাখা কার্যালয়ের অন্য যেকোনো আয়, কমিশন ফেরত ইত্যাদি ব্যাংক হিসাবে জমা করার ব্যবস্থা করতে হবে।

সব ধরনের লেনদেন ক্রসড চেকের মাধ্যমে করতে হবে। দাপ্তরিক বিশেষ প্রয়োজনে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত নগদ উত্তোলন করা যেতে পারে। তবে কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ সভার সম্মানী ও এ সংক্রান্ত অন্যান্য ব্যয় নগদে করা যাবে। এ নির্দেশনার আলোকে ব্যাংক হিসাবগুলো বিন্যাস করে আগামী ১২ আগস্টের মধ্যে কর্তৃপক্ষকে অবহিত করতে হবে।

বিনিয়োগ সংক্রান্ত এফডিআরের জন্য ব্যাংক হিসাব খোলার ক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষের অনুমোদনের প্রয়োজন নেই বলে নির্দেশনায় উলেখ করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, এ ক্ষেত্রে জনগণের অংশের শেয়ার/আইপিও, রাইটস ইস্যু এবং লভ্যাংশ প্রদানে পৃথক ব্যাংক হিসাব খোলার জন্য পরিচালনা পর্ষদের অনুমোদন নিতে হবে এবং ওই ব্যাংক হিসাবের বিস্তারিত তথ্য কর্তৃপক্ষকে অবহিত করতে হবে। তবে অন্য যেকোনো বিষয়ে কোম্পানির ব্যাংক হিসাব খোলার আগে কর্তৃপক্ষের পূর্ব অনুমোদন নিতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ