ঢাকা, বৃহস্পতিবার 18 July 2019, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ জিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

এবারও দেশ সেরা তা’মীরুল মিল্লাত মাদরাসা

এ বছরের আলীম পরীক্ষার ফলাফলে সেরাদের সেরা তামিরুল মিল্লাত কামিল মাদরাসা টঙ্গীর শিক্ষার্থীদের উল্লাস। গতকাল বুধবার তোলা ছবি -সংগ্রাম

এইচ এম আকতার: বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা  বোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত আলিম পরীক্ষায় এবারও মোট জিপিএ ৫ এর ২২ দশমিক ১৫ শতাংশ পেয়ে রেকর্ড অব্যাহত রেখেছে তা’মীরুল মিল্লাত মাদরাসা। একক প্রতিষ্ঠান হিসেবে ৪০৯ জন জিপিএ ৫ পেয়ে শীর্ষ অবস্থান দখল করে রেখেছে টঙ্গী। এবার মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডে জিপিএ ৫ পেয়েছে মোট ২২৪৩ জন। তা’মীরুল মিল্লাত ট্রাস্ট পরিচালিত তিনটি প্রতিষ্ঠান থেকে এবার জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪৯৭ জন। বোর্ডের প্রায় এক চতুর্থাংশ জিপিএ ৫ পেয়েছে এই প্রতিষ্ঠান থেকেই। যা অতীতের সব রেকর্ড ভেঙ্গেছে। ট্রাস্টের সেক্রেটারি অধ্যক্ষ যাইনুল আবেদীন বলেছেন আগামীতেও এ সাফল্যের ধারা অব্যাহত থাকবে। ইনশাল্লাহ।
 ফলাফল বিশ্লেষণে দেখা গেছে, এবার টঙ্গী থেকে বিজ্ঞান বিভাগে অতীতের ধারাবাহিকতায় এবারও জিপিএ ৫ প্রাপ্তিতে শীর্ষস্থান অধিকার করেছে। মাদরাসাটি থেকে ৭৮১ জন অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীর মধ্যে ৪০৯ জন জিপিএ ৫ সহ সবাই উত্তীর্ণ হয়েছে। এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগে ৩৩৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে  ১৭৯ জন ও ১৫৭ জন  পেয়েছে জিপিএ ৪। সাধারণ বিভাগে ৪৪৫ পরীক্ষার্থীর মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ২৩০ জন, আর জিপিএ ৪ পেয়েছে ২১৫ জন।
প্রতিষ্ঠানটির মূল ক্যাম্পাস থেকে এবার তা‘মীরুল মিল্লাত ট্রাস্ট পরিচালিত তা‘মীরুল মিল্লাত কামিল মাদ্রাসা, ঢাকা থেকে ৩৩৮ জন অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীর মধ্যে ৩০ জন জিপিএ ৫ পেয়েছে। এদের মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগে ১০৯ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৪ জন জিপিএ ৫ পেয়েছে, জিপিএ ৪ পেয়েছে ৮৭ জন, আর বাকি ৮ জন পেয়েছে এ-। আর এ ক্যাম্পাস থেকে  সাধারণ বিভাগে ২২৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৬ জন। এদের মধ্যে জিপিএ ৪ পেয়েছে ১২৫ জন। ৫৪ জন এ- পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। ১৬ জন পেয়েছে বি এবং ৬ জন পেয়েছে সি।
তা‘মীরুল মিল্লাত মহিলা কামিল মাদরাসা, মাতুয়াইল থেকে এ বছর ১৪৭ জন অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীর মধ্যে ৫৫ জন ছাত্রী জিপিএ ৫ পেয়েছে। এ শাখা থেকে সবাই উত্তীর্ণ হয়েছে। এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগে ৫৫ পরীক্ষার্থীর মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩০ জন,  বাকি ২৫ জন জিপিএ ৪ পেয়েছে। সাধারণ বিভাগে ৯১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে  জিপিএ ৫+ পেয়েছে  ২৫ জন। বাকি ৬৬ জন  পেয়েছে জিপিএ ৪।
তা’মীরুল মিল্লাত ট্রাস্টের সেক্রেটারি বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ মাওলানা মুহাম্মদ যাইনুল আবেদীন মহান আল্লাহ তায়ালার শুকরিয়া জ্ঞাপন করেন। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে, সাফল্যের এ ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য ছাত্র ও শিক্ষকদের জোর প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে এবং দেশ ও জাতির ক্রান্তিলগ্নে তা‘মীরুল মিল্লাত কামিল মাদ্রাসার ছাত্ররা আদর্শিক ও নৈতিকতার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।
তিনি আরও বলেন, দেশে ইসলামি শিক্ষাব্যবস্থার নানা সীমাবদ্ধতা ও প্রতিকুলতার মধ্যেও তা‘মীরুল মিল্লাতের প্রতি দেশ ও জাতি গভীরভাবে আস্থা রেখেছে। এরই ফলশ্রুতিতে ২০১৯-২০২০ সেশনে আলিম প্রথম বর্ষে প্রায় আড়াই হাজার ছাত্র-ছাত্রী তা‘মীরুল মিল্লাত মাদ্রাসায় ভর্তি হয়েছে। জাতির এ বিশাল আমানত রক্ষায় তিনি আল্লাহ তা‘আলার নিকট তাওফীক এবং দেশবাসীর দু‘আ ও সহযোগিতা কামনা করেন।
তা’মীরুল মিল্লাত কামিল মাদরাসা ঢাকার অধ্যক্ষ ড. মুফতি মুহাম্মদ আবু ইউছুফ খান বলেন,নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও এবার যে ফলাফল হয়েছে তার জন্য আল্লাহ দরবারে শুকরিয়া আদায় করছি। সফলতার ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে কোন ধরনের ছাড় দেয়া হবে না। বছরের শুরু থেকে দুর্বল ছাত্রদের জন্য বিশেষ নজর দেয়া হয়ে থাকে। ছাত্র শিক্ষক আর অভিভাবকের সমন্বয়ে এই সফলতার ধারাবাহিকতা আগামীতেও অব্যাহত থাকবে।
ফলাফলে সন্তোষ প্রকাশ করে তা’মীরুল মিল্লাত টঙ্গীর ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা মো: মিজানুর রহমান বলেন, প্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডির নিবিড় তদারকি, শিক্ষক মন্ডলীর আন্তরিক প্রচেষ্টা, ছাত্র-ছাত্রীদের অধ্যবসায় ও অভিভাবকগণের একান্ত সহযোগিতা, সর্বোপরি মহান আল্লাহর মেহেরবানী সাফল্যের ধারাকে গতিশীল রেখেছে। এজন্য তিনি সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান ও আল্লাহ তা’য়ালার শুকরিয়া আদায় করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ