ঢাকা, শুক্রবার 19 July 2019, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৫ জিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

আফগানিস্তানে খেলা নিয়ে উদ্বিগ্ন বাফুফে

স্পোর্টস রিপোর্টার: কাতার বিশ্বকাপ ফুটবল বাছাই পর্বের হোম এন্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে ই-গ্রুপে খেলবে বাংলাদেশ। এই গ্রুপে আরো রয়েছে ভারত, ওমান, আফগানিস্তান এবং স্বাগতিক কাতার।আগামী ১০ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানে অ্যাওয়ে ম্যাচের মধ্য দিয়ে বিশ্বকাপ বাছাই মিশন শুরু হবে বাংলাদেশের। তবে অ্যাওয়ে ম্যাচে প্রতিপক্ষ আফগানিস্তানের ভেন্যু নিয়ে কিছুটা শংকিত বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। যুদ্ধবিধ্বস্ত এই দেশের ভেন্যুকে নিরাপদ মনে করছে না বাফুফে। তাই নিরপেক্ষ ভেন্যুর জন্য এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের (এএফসি) আবেদন করা হয়েছে বলে জানান বাফুফের সাধারন সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ। বাফুফে সেক্রেটারী জানালেন,‘বুধবার মালয়েশিয়ায় ড্র অনুষ্ঠানের পরেই আমরা আফগানিস্তানের বাইরে নিরপেক্ষ একটি ভেন্যুতে খেলার দাবী জানিয়েছি।’

ড্রয়ে প্রতিপক্ষ দেখে ই-গ্রুপকে শক্তিশালী বললেন সোহাগ। তার কথায়, ‘কাতার এশিয়ার দু’নম্বর এবং ফিফার ৫৫ নম্বর দল। নি:সন্দেহে শক্তিশালী তারা। র‌্যাংকিংয়ে এই গ্রুপের সবচেয়ে এগিয়ে থাকা দল কাতারের বিপক্ষে ম্যাচটি আমাদের জন্য খুবই কঠিন হবে। তাছাড়া ইতিমধ্যে ভারত ফুটবলে অনেক এগিয়েছে। যদিও বর্তমানে তাদের ফিফা র‌্যাংকিং ১০১তম। তবে এশিয়ার ১৪ নম্বর দল তারা। এছাড়া ফিফা র‌্যাংকিংয়ে ওমান ৮৬, আফগানিস্তান ১৪৯ তম দল। যেখানে ফিফায় বাংলাদেশের অবস্থান ১৮৩ তম স্থানে। তাই মনে হচ্ছে, খুবই কঠিন গ্রুপে পড়েছি আমরা।’

ভেন্যু পরিবর্তনের বিষয়টি খুব সহজ হবে বলে মনে হচ্ছে না। কারণ এর আগে ২০১৫ সালে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে ঢাকায় এসে খেলতে চায়নি অস্ট্রেলিয়া। এএফসির কাছে তারা নিরপেক্ষ ভেন্যুর জন্য আবেদনও করেছিল। কিন্তু এশিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থাটি রাজী না হওয়ায় শেষ পর্যন্ত ঢাকায় এসেই খেলতে বাধ্য হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। যদিও যুদ্ধ বিধ্বস্ত এশিয়ার এই দেশটির বিকল্প ভেন্যুর দাবী এএফসি পূরন করবে বলে বিশ্বাস সোহাগের, ‘আফগানিস্তানের বর্তমান অবস্থা সবারই জানা। আমরা আবেদনও করেছি। এখন এএফসির কর্মকর্তারা যাচাই বাছাই করে দেখবেন। তারপরেই আমাদেরকে জানাবে।’ তিনি যোগ করেন, ‘গতবার অবশ্য আফগানিস্তানের খেলাগুলো নিরপেক্ষ ভেন্যু তুর্কমেনিস্তানে হয়েছিল। তাই বাফুফে আশাবাদী এবারও নিরপেক্ষ ভেন্যু দেবে এএফসি।’ কাতার বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে এশীয় অঞ্চলের ৪০টি দেশ আটটি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে খেলবে। প্রত্যেক গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন দলগুলো তৃতীয় রাউন্ডে উঠবে। এছাড়া আট গ্রুপের সেরা চারটি রানার্সআপ দলও খেলবে পরবর্তী রাউন্ডে। আর এই ১২ দল সরাসরি খেলবে এএফসি এশিয়া কাপেও। তবে রানার্সআপ হওয়া বাকি চারটি দল খেলবে এশিয়া কাপ বাছাইয়ের তৃতীয় রাউন্ডে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ