ঢাকা,মঙ্গলবার 30 July 2019, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৬, ২৬ জিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

মাদারীপুরে ফেরী দেরিতে ছাড়ায় তিতাসের মৃত্যুর অভিযোগ

শেখ মো: সামসুদ্দোহা,মাদারীপুর থেকে : সরকারের তথ্য-প্রযুক্তি বিভাগের এটুআই প্রকল্পের যুগ্ম সচিব পদমর্যাদার এক কর্মকর্তার জন্য মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি ফেরীঘাটে প্রায় ৩ ঘন্টা ফেরির অপেক্ষায় থেকে পদ্মা পাড়ি দিতে না পেরে মাঝ নদীতে এ্যাম্বুলেন্সে থাকা অবস্থাতেই প্রাণ গেল নড়াইলের স্কুলছাত্র তিতাস ঘোষের (১৩)। এ মমার্ন্তিক ঘটনাটি ঘটে গত বুহস্পতিবার রাতে। নিহত তিতাস নড়াইলের কালিয়া পৌরসভার বড়কালিয়া এলাকার মৃত তাপস ঘোষের ছেলে এবং কালিয়া সরকারি পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র ।
মৃত স্কুল ছাত্রের মাতা সোনামনি ঘোষ বলেন কালিয়া পৌরসভার বড়কালিয়ার মিঠুন ঘোষের বরযাত্রী হিসেবে বরযাত্রীবাহী গাড়ির সঙ্গে মোটরসাইকেলে তিতাস ও বন্ধু সনু বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের হন। ওইদিন রাত ৮টার দিকে নড়াইল-কালিয়া সড়কের আউড়িয়া মোড়ে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে পড়ে গুরুতর আহত হয় তারা। তিতাসের মাথা ও বুকে আঘাত লাগে। এ দুর্ঘটনায় আহত মোটরসাইকেলের অপর আরোহী অনির্বান ঘোষ সনু (৩৫) খুলনায় চিকিৎসাধীন আছেন। গুরুতর অবস্থায় প্রথমে তিতাসকে তাদের নড়াইল সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনায় নেয়া হয়। পরে আরো উন্নততর চিকিৎসার জন্য একটি আইসিইউ সম্বলিত অ্যাম্বুলেন্সে গত বৃহস্পতিবার তাকে ঢাকা নিয়ে মেডিকেল কলেজের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন পরিবারের লোকজন। রাত ৮টার দিকে কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌ-রুটের মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি ১নং ভিআইপি ফেরিঘাটে পৌঁছায় অ্যাম্বুলেন্সটি।
এদিকে বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ঘাটে সরকারি মাধ্যমে ম্যাসেজ আসে যে, যুগ্ম-সচিব পদমর্যাদায় সরকারের এটুআই প্রকল্পের জেনারেল সেক্রেটারি হিসেবে কর্মরত আবু সফর ম-ল পিরোজপুর থেকে ঢাকা যাবেন। ঘাটের ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তারা তার জন্য প্রস্তুত রাখা ফেরিটিতে অ্যাম্বুলেন্সটিকে তোলেন। তিতাসের মামা বিজয় ঘোষ বলেন, “আমার বোন সোনামনিঘোষ ফেরির লোকদের পায়ে ধরে মাটিতে পড়ে কেঁদেছে। তবু ওরা ফেরি ছাড়েনি। উল্টো বলেছে ফেরি ছাড়লে নাকি তাদের চাকরি থাকবে না। তারা বলেছে ভিআইপি আসবে। আর আমাদের রোগী যে মরে যাচ্ছে, সেদিকে তাদের কোনো নজর নেই।” এদিকে ওই কর্মকর্তার গাড়িটি না আসা পর্যন্ত ফেরি ছাড়তে রাজি হননি ঘাট কর্তৃপক্ষ। এই অবস্থায় মুমূর্ষু তিতাসকে বাঁচাতে পরিবারের স্বজনরা ফোন করেন জরুরী নাম্বার ৯৯৯। সাহায্য চান ঘাটে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের। তাদের অভিযোগ আছে, কারও অনুরোধই রাখেননি ঘাট কর্তৃপক্ষ। ফলে ‘কুমিল্লা নামের ফেরীটি দেরীতে ছাড়ায় কাঠালবাড়ীঘাট প্রান্তেই বৃহস্পতিবার রাত ১২ টার দিকে তিতাস মারা যায়। শুক্রবার দুপুরে নড়াইলে শেষকৃত্য অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে।
কান্না বিজরিত কণ্ঠে মৃত তিতাসের মাতা বলেন, ১২ বছর আগে আমার স্বামী তাপস ঘোষ ব্রামনবাড়িয়াতে চাকরিতে কর্মরত থাকা অবস্থায় স্ট্রোক করে মারা যায়। তখন বুকের ধন তিতাস আর মেয়ে তনসাকে নিয়ে বিপদে পড়ে যাই। বহু কস্টে পপুলার লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানিতে চাকরি নিয়ে কালিয়া ব্রাঞ্চের ম্যানেজার হিসাবে কাজ করে বড় মেয়ে তনসা ঘোষ ও ছেলে তিতাসকে লেখাপড়া করাতে থাকি। মেয়ে তনসা কালিয়া আবদুস সালাম ডিগ্রি কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী।এখন আমার সব শেষ হয়ে গেছে। কি নিয়ে আমি বাচবো বলে মুর্ছা গেলো সে।
এদিকে এ ঘটনার ব্যাপারে বিআইডব্লিউটিসি মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক সালাম হোসেন বলেন, পদ্মায় স্রোতের কারণে ১৮টি ফেরির মধ্যে মাত্র ৮টি ফেরি চলাচল করা সম্ভব ছিল। দ্রুত পারাপারের কথা বিবেচনা করে ওই অ্যাম্বুলেন্সটিকে ভিআইপি ফেরিতে ওঠানো হয়। তবে ফেরি ছাড়তে স্বাভাবিক যে সময় লাগে তার বেশি দেরি করা হয়নি।
তিতাসের মৃত্যুর বিষয়টি জানিয়ে যুগ্ম সচিব আবদুস সবুর ম-লের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি বলেন, “এ বিষয়টি নিয়ে আমি বিব্রত এবং একই সাথে হতবাক। আমি যে কী পরিমাণ অস্বস্তির মধ্যে আছি, তা বলে বোঝাতে পারব না।“আমি ফেরি আটকে রাখতে বলিনি। আমি শুধু বলেছি আমি যাব- একটা ব্যবস্থা করতে। আমার কাছে কোনো সিদ্ধান্তও জানতে চাওয়া হয়নি।
মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক ওয়াহিদুল ইসলাম বলেন, ফেরি ছাড়তে বিলম্ব হওয়ার যে অভিযোগ উঠেছে এরই ভিত্তিতে ৪ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। মাদারীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শহীদুল হক পাটোয়ারীকে প্রধান করে। ওই কমিটির বাকিরা হলেন শিবচরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো: আসাদুজ্জামান , অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শিবচর সার্কেল) মো: আবীর হোসেন ও বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের এজিএম এ. কে.এম শাহজাহান।
অপরদিকে এ ঘটনায় নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব শাহনওয়াজ দিলরুবা খানের নেতৃত্বে গঠিত হয়েছে। এই কমিটিতে সদস্য হিসেবে রয়েছেন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব শাহ হাবিবুর রহমান হাকিম। তদন্ত কমিটিকে আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে সোমবার নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ