ঢাকা, শুক্রবার 2 August 2019, ১৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ২৯ জিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

বীমা এজেন্টদের ১৫ শতাংশের বেশি কমিশন দিলে আইনি ব্যবস্থা

 

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিআইএ) সভাপতি শেখ কবির হোসেন বলেছেন, সাধারণ বীমা কোম্পানির প্রিমিয়াম সংগ্রহের জন্য বীমা এজেন্টদেরকে ১৫ শতাংশের বেশি কমিশন দিলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন বিআইএ’র সদস্য ও মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির ভাইস চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন পাভেল। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গ্রীন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফারজানা চৌধুরী, প্রগতি ইন্স্যুরেন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জালালুর আজিম, ইউনিয়ন ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান মোজাফ্ফর হোসেন পল্টু প্রমুখ।

শেখ কবির হোসেন বলেন, বীমা আইন ২০১০ অনুযায়ী প্রিমিয়াম সংগ্রহের জন্য বীমা এজেন্টকে ১৫ শতাংশের বেশি কমিশন বা আর্থিক সুবিধা দেওয়ার সুযোগ নেই। অনেক সাধারণ বীমা কোম্পানি প্রিমিয়াম সংগ্রহের ওপর বীমা এজেন্টদের ১৫ শতাংশের বেশি কমিশন দিচ্ছে। যারা আইন অমান্য করে এজেন্টদেরকে ১৫ শতাংশের বেশি কমিশন দিচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে শেখ কবির হোসেন বলেন, কোনো সাধারণ বীমা কোম্পানিতে নিরীক্ষার সময় যদি ধরা পরে প্রতিষ্ঠানটি ১৫ শতাংশের বেশি এজেন্ট কমিশন দিয়েছে তাহলে ওই কোম্পানির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রয়োজনে কোম্পানির নিবন্ধন বাতিল করা হবে এবং সেইসঙ্গে জরিমানা করা হবে।

আরেক প্রশ্নের জবাবে শেখ কবির হোসেন বলেন, বীমা কোম্পানিগুলো বীমা দাবি পরিশোধ করছে না- এ কথা ঠিক না। ২০১৮ সালে বীমা কোম্পানিগুলো আট হাজার কোটি টাকা বীমা দাবি পরিশোধ করেছে।

সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, নন-লাইফ বীমা কোম্পানিগুলো নানাবিধ সমস্যার কারণে আর্থিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়ছে। দেশের মানুষকে ঠিকমতো বীমা সেবা দিতে পারছে না। এ অবস্থায় প্রিমিয়াম সংগ্রহের জন্য কোন বীমা এজেন্টকে ১৫ শতাংশের ওপরে কমিশম দিতে হচ্ছে, যা আইনগতভাবে নিষিদ্ধ। দেশের বীমাখাতে শৃঙ্খলা ফেরাতে তাই কোনো এজেন্টরা যেনো ১৫ শতাংশের ওপরে আর্থিক সুবিধা নিতে না পারে সে ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তারা বলেন, কোনো নন-লাইফ ইন্স্যুইরেন্স কোম্পানিতে কমিশন ভিত্তিতে কর্মচারীও নিয়োগ দেওয়া যাবে না। এবং এ ধরনের নিয়োগ থাকলে তা বাতিল করতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ