ঢাকা, শনিবার 10 August 2019, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৬, ৮ জিলহজ্ব ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

সার্বিয়ার ‘নাগরিকত্ব পেলেন’ ইংলাক সিনাওয়াত্রা

৯ আগস্ট, এনডিটিভি : থাইল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনাওয়াত্রাকে নাগরিকত্ব দিয়েছে সার্বিয়া। গত ২৭ জুন সার্বিয়া সরকার তাকে নাগরিকত্ব দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বলে জানায় দেশটির সংবাদমাধ্যম।

গত বৃহস্পতিবার সার্বিয়ার স্থানীয় একটি ম্যাগাজিন একটি সরকারি নথির ছবি প্রকাশ করে। যেখানে ২৭ জুন তারিখে ইংলাককে সার্বিয়ার নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা আছে। নথিতে সার্বিয়ার প্রধানমন্ত্রী আনা ব্রানাবিকের স্বাক্ষরও দেখা যাচ্ছে। তবে এ বিষয়ে সার্বিয়া সরকার শুক্রবার পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি।

৫২ বছরের ইংলাকের মুখপাত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনিও এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

২০১৪ সালে গণআন্দোলনের মধ্যে সেনা অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত হন ইংলাক। পরে কারাদ-ের সাজা এড়াতে ২০১৭ সালের অগাস্টে জান্তা সরকারের আমলেই তিনি গোপনে থাইল্যান্ড ছাড়েন।

সেখান থেকে তিনি দুবাইয়ে তার ভাই থাকসিন সিনাওয়াত্রার কাছে চলে যান। থাইল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী থাকসিনও দুর্নীতির দায়ে পাওয়া কারাদণ্ড এড়াতে ২০০৬ সাল থেকে স্বেচ্ছা নির্বাসনে আছেন।

থাইল্যান্ড থেকে পালিয়ে যাওয়ার মাত্র কয়েকদিন পর চাল ক্রয় প্রকল্পে ভর্তুকি প্রদাণ নিয়ে নয়ছয়ের ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে ইংলাককে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

যদিও ইংলাক ও তার সমর্থকদের দাবি, থাইল্যান্ডের রাজনীতি থেকে সিনাওয়াত্রা পরিবারের মূল উৎপাটন করতেই তাকে এই সাজা দেওয়া হয়েছে।

থাইল্যান্ড থেকে পালিয়ে যাওয়ার পর ইংলাককে লন্ডন, দুবাই, হংকং এবং জাপানসহ আরো কয়েকটি নগরীতে দেখা গেছে। সার্বিয়ার পাসপোর্ট পেয়ে গেলে ইংলাক কোনো ভিসা ছাড়াই শতাধিক দেশে ভ্রমণ করতে পারবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ