ঢাকা, মঙ্গলবার 17 September 2019, ২ আশ্বিন ১৪২৬, ১৭ মহররম ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

হিলিতে পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে ১০ টাকা, বাড়বে আরও ১০

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: ঈদুল আজহা উপলক্ষে টানা আট দিন বন্ধ থাকার পর দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। কিন্তু ইতিমধ্যে কেজিতে দাম বেড়ে গেছে ১০ টাকা। ভারতে বন্যার কারণে এ দাম আরও বাড়বে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

বন্দরের মোকামে রবিবার মানভেদে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৩১-৩২ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে।

ব্যবসায়ী মোর্শেদুর রহমান জানান, বন্ধের আগে মোকামে পেঁয়াজের কেজি ছিল ২০-২২ টাকা। কিন্তু আট দিন আমদানি বন্ধ থাকায় বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজের সরবরাহ কমে আসে। রবিবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বন্দর দিয়ে ভারতীয় ২৩টি ট্রাকে ৫০০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়। যা অন্যান্য দিনের তুলনায় খুবই কম। তাই এ দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

ভারতে বন্যার কারণে পেঁয়াজের ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় ৫-৬দিন পর কেজিতে আরও ১০ টাকা করে দাম বাড়বে বলে জানান তিনি।

আরেক ব্যবসায়ী আইয়ুব আলী বলেন, ‘সবেমাত্র বন্দর চালু হয়েছে। এ কারণে কম পরিমাণে পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। কিন্তু বাইরের ব্যবসায়ীদের চাহিদা বেশি থাকায় প্রথম দিনেই (রবিবার) পেঁয়াজের দাম বেড়ে যায়।’

রংপুর থেকে আসা পাইকারি ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম জানান, পরিবহন খরচ ও নষ্ট পেঁয়াজের হিসাব ধরলে তার কেনা প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম পড়েছে ৩৫ টাকা। এ পেঁয়াজ ৩৬-৩৭ টাকায় বিক্রি করতে হবে, না হলে লোকসান হবে। 

তবে বাংলাহিলি বাজারের খুচরা ব্যবসায়ীরা জানান, রবিবারও স্থানীয় হাট-বাজারে আগের আমদানি করা পেঁয়াজ ২৮-৩০ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। বাড়তি দামের পেঁয়াজ স্থানীয় বাজারে এখনো আসেনি। তাই দামে প্রভাব পড়েনি।

বাংলাহিলি কাস্টমস সিএন্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান লিটন জানান, পবিত্র ঈদুল আজহাসহ অন্যান্য ছুটির কারণে টানা আট দিন আমদানি-রপ্তানি বন্ধ ছিল। রবিবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে বন্দর দিয়ে সব কার্যক্রম আবার শুরু হয়েছে।

-ইউএনবি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ