ঢাকা, বুধবার 23 October 2019, ৮ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

পুলিশকে জনগণের বন্ধু হিসেবে কাজ করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: সততা, নিষ্ঠা ও একাগ্রতার সাথে জণগণের সেবা করতে এবং বিপদে জনগণের বন্ধু হিসেবে কাজ করতে নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজশাহীর সারদা পুলিশ একাডেমিতে ৩৬তম বিসিএস (পুলিশ) ব্যাচের নবীণ পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে তিনি এ আহ্বান জানান। 

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পুলিশ বাহিনী অত্যন্ত দক্ষতার সাথে তাদের দায়িত্ব পালন করছে বলেই আজকে আমরা জঙ্গিবাদ দমন করতে পেরেছি, সন্ত্রাস নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছি। মাদকের বিরুদ্ধেও অভিযান চলছে এবং এভাবেই চলবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের মানুষ যাতে সেবা পায় সে জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক পুলিশ আমরা নিয়োগ দিয়ে যাচ্ছি। ইতোমধ্যে আমরা ৪৯ হাজার ২০০ পদ সৃষ্টি করেছি। পুলিশের ট্রেনিংয়ের জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছি। সেই সাথে আমরা বিভিন্ন অঞ্চলভিত্তিক বিশেষায়িত পুলিশও তৈরি করছি। যেমন শিল্পাঞ্চলের জন্য শিল্প পুলিশ, টুরিস্ট পুলিশ, পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশান, নৌ পুলিশ, গার্ড এবং প্রোটেকশন পুলিশ গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

তাছাড়া পুলিশের পদায়নের ক্ষেত্রে আমরা মান উচ্চ করেছি। রেশম ভাতা দিয়েছি। আবাসনের ব্যবস্থা করেছি। সব ধরনের ব্যবস্থা আমরা নিচ্ছি। ইতোমধ্যেই আমরা ঝুঁকি ভাতা প্রবর্তন করেছি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বর্তমানে ৯৯৯ এ ফোন করার সাথে সাথে পুলিশ অত্যন্ত দক্ষতার সাথে ঘটনাস্থলে পৌঁছে যাচ্ছে। জনগণ সেবা পাচ্ছে। এই ধরনের কার্যক্রম আরও অব্যাহত থাকবে।

নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যারা নবীন পুলিশ কর্মকর্তা কুচকাওয়াজে অংশগ্রহণ করে আপনাদের দায়িত্ব পালন করতে যাচ্ছেন তাদেরকে আমি এটাই বলবো বিপদে জনগণের বন্ধু হিসেবে নিজেদের গড়ে তুলবেন। যাতে করে সমাজকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে এমন কালো বিষয়গুলোর বিরুদ্ধে আমরা অভিযান চালাতে পারি।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকাল সাড়ে ১০টায় একাডেমির হেলিপ্যাডে এসে পৌঁছালে বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম (বার) ও একাডেমির প্রিন্সিপাল মোহাম্মদ নাজিবর রহমান, এনডিসি, পিএইচডি এবং ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি সুসজ্জিত খোলা জিপে চড়ে বর্ণাঢ্য প্যারেড পরিদর্শন এবং অভিবাদন গ্রহণ করেন।

প্রশিক্ষণকালীন সময়ে বিভিন্ন বিষয়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী সহকারী পুলিশ সুপারদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। প্যারেডে ১৭ জন নারী অফিসারসহ ১১৭ জন শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপার অংশগ্রহণ করেন।

বিভিন্ন ক্ষেত্রে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপাররা হলেন, ‘বেস্ট শ্যূটার’ খায়রুল কবির, ‘বেস্ট ফিল্ড পারফমার’ আব্দুল্লাহ-আল-মামুন, ‘বেস্ট হর্সম্যানশিপ’ সালাহ্উদ্দিন, ‘বেস্ট একাডেমিক’ সাইফুল ইসলাম খান এবং ‘বেস্ট প্রবেশনার’ সালাহ্উদ্দিন। 

অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, মন্ত্রী পরিষদ সদস্য, সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তা, কূটনীতিক, ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা, পদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তা, মুক্তিযোদ্ধা ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ