ঢাকা, সোমবার 16 September 2019, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ মহররম ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

ডাকসুর কোষাধ্যক্ষসহ ৮ প্রতিনিধিকে অপসারণে ভিপি নূরের চিঠি

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের আগ মুহূর্তে নিয়মবহির্ভূতভাবে ৩৪ শিক্ষার্থীকে ভর্তি হওয়ার সুযোগ দেয়ার অভিযোগ এনে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন ও ডাকসুর কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলামকে অপসারণের দাবি জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নূর। একইসঙ্গে ডাকসুতে নির্বাচিত আট প্রতিনিধিকে অপসারণের দাবি জানিয়েছেন তিনি।
গতকাল রোববার তিনি ভিসি অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের কাছে পাঠানো এক পত্রে এই আবেদন জানান। ভিপি নূরের স্বাক্ষরিত আবেদনপত্রে বলা হয়, নির্বাচনের পূর্বে ছাত্রত্ব দেখানোর নিমিত্তে নিয়ম লঙ্ঘন করে ১১ ফেব্রুয়ারি তফসিল ঘোষণার পর ব্যবসা শিক্ষা অনুষদের ব্যাংকিং অ্যান্ড ইন্স্যুরেন্স বিভাগে কোনও ধরনের ভর্তি পরীক্ষা ছাড়াই ৩৪ জন শিক্ষার্থীকে ভর্তি করা হয়েছে, যা সান্ধ্যকালীন কোর্স তথা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম পরিপন্থী।
নিয়মবহির্ভূতভাবে ভর্তি হওয়া ৩৪ জনের ছাত্রত্ব বাতিল করে অভিযুক্তদের ডাকসু ও হল সংসদের পদ শূন্য ঘোষণা করা এবং ডাকসুর কোষাধ্যক্ষ ও ব্যবসা শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলামের অপসারণের দাবি জানাচ্ছি।
ভিপি নূরের চিঠিতে অভিযুক্ত ডাকসু’র ৮ প্রতিনিধি হচ্ছেন ডাকসু সদস্য নজরুল ইসলাম, মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসান, রাকিবুল হাসান রাকিব, নিপু ইসলাম তন্বী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মো. আরিফ ইবনে আলী, স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক সাদ বিন কাদের চৌধুরী, ক্রীড়া সম্পাদক শাকিল আহমেদ শাকিল ও স্যার এ. এফ. রহমান হলের ভিপি আবদুল আলীম খান।
ছাত্র ফেডারেশনের আল্টিমেটাম: ডাকসু’র জিএস পদ থেকে গোলাম রাব্বানী ও ঢাবির সিনেট সদস্য পদ থেকে রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে অপসারণের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন। গতকাল  দুপর ১২টায় ঢাবি ক্যাম্পাসে এক প্রতিবাদ সমাবেশে এই দাবি করেন তারা। তার আগে একই দাবিতে ক্যাম্পাসে একটি বিক্ষোভ মিছিল করেন বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের নেতাকর্মীরা।
সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জাহিদ সুজন বলেন, দুর্নীতি ও চাঁদাবাজির দায়ে ইতিমধ্যে গোলামা রাব্বানীকে ও শুভনকে ছাত্রলীগ থেকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করা হয়েছে। এখন সময়ের দাবি তাদেরকে আইনের আওতায় এনে বিচার করা হোক। সেইসঙ্গে ঢাবিতে তাদের যত পদপদবী আছে এগুলো থেকে তাদের ২৪ ঘন্টার মধ্যে অপসারণ করতে হবে। চাঁদাবাজ ছাত্রনেতারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকতে পারে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।
এসময় আরো বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সাদিক রেজা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ সম্পাদক সালমান ফরাজি, সাংগঠিনক মো. সজিব প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ