ঢাকা, বৃহস্পতিবার 19 September 2019, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মহররম ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাসেবা বঞ্চিত সাধারণ মানুষ

শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) সংবাদাতা : শিবগঞ্জ উপজেলার ৮ লাখ মানুষের জন্য ৪ জন ডাক্তার দিয়ে চলছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। প্রতিদিন হাজারো দুস্থ মানুষ আধুনিক চিকিৎসার জন্য ছুটে আসে এখানে। কর্মরত ডাক্তারেরা রোগীদের চিকিৎসা দিতে হিমসিম খাচ্ছেন। অনেক রোগী হয়রানি ও চিকিৎসা বঞ্চিত হচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স অফিস সূত্রে জানাগেছে এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২১টি বিভিন্ন পদের মধ্যে কর্মরত আছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা, ভারপ্রাপ্ত আরএমও ১ জন, মেডিকেল অফিসার ২ জন, জুনিয়র কনসালটেন্ড ৫ জন, প্যাথলোজিষ্ট ১ জন, সহকারী সার্জন হোমিও প্যাথিক ২ জন ও আইএমও ১ জন। এছাড়া জুনিয়র কনসালটেন্ড মেডিসিন ১ জন, জুনিয়র কনঃ (এ্যানেস) ১ জন, জুনিয়র কনঃ (চক্ষু) ১ জন, সহকারী সার্জন হোমিও প্যাথিক ৪ জন, এ্যাসেন্স ১ জন, ইএমও ১ জন পদ দীর্ঘ দিন যাবৎ শূন্য রয়েছে।
এছাড়াও ১৩টি স্বাস্থ্য উপকেন্দ্র ও ১টি ইউএসসিতে মেডিকেল অফিসার ৬টি ও সহকারী সার্জন ৮টি পদ শূন্য রয়েছে। শিবগঞ্জ উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার রোগীতো আছেই এছাড়া পার্শ্ববর্তী গোমাস্তাপুর ভোলাহাট উপজেলার অনেক রোগীকে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবা দিতে হচ্ছে। এখানে ডাক্তারে সংখ্যা কম হওয়ায় কর্মরত ডাক্তারদের ৬ ঘণ্টার স্থলে ১০-১১ ঘণ্টা রোগী দেখতে হয়। শুধুমাত্র আউটডোরে চিকিৎসার জন্য প্রায় ১ হাজার  রোগী চিকিৎসার জন্য আসে। অনেক জটিল রোগীকে চিকিৎসার জন্য নবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে রেফার করতে হয়। শিবগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ শুধু জনবল সংকট নয়, আছে স্থানীয়দের প্রভাব, সন্ধ্যার পর মাদকাসক্ত ও বখাটেদের উৎখাত। তাছাড়া ডিজিটাল এক্সেরে মেশিন, এ্যাম্বুলেন্স, আলটাশনোগ্রাফী মেশিন, আবাসিক এলাকায় বাউন্ডারি ওয়াল না থাকা ও আউটডোরে প্রয়োজনীয় ঔষধ বিতরণ করতে না পারা, উপজেলা জনসংখ্যার তুলনায় বেড না থাকায় ও মিলনায়তন না থাকাসহ রয়েছে হাজারো সমস্যা।
এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ অফিসার, ভারপ্রাপ্ত আরএমও মোঃ আকতার হোসেন জানান আমারা প্রতিমাসে জনবল সংকট সহ নানা মস্যার কথা জানিয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আর্কষণ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ