ঢাকা, শুক্রবার 20 September 2019, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মহররম ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নির্বাচনসহ বিভিন্ন ইস্যুতে আলোচনা

 

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির সঙ্গে বৈঠক করেছে সফররত বৃটিশ পার্লামেন্টের একটি প্রতিনিধি দল। গতকাল  বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এই বৈঠক হয়। যুক্তরাজ্যের ‘কনজারভেটিভ ফ্রেন্ড অব বাংলাদেশ’ এই গ্রুপে নেতৃত্ব দেন পল স্কাউলি যিনি কনজারভেটিভ পার্টির ডেপুটি চেয়ারম্যান। এছাড়া ‘কনজারভেটিভ ফ্রেন্ড অব বাংলাদেশ’ এর চেয়ারপারসন এ্যান মেইনসহ কয়েকজন এমপি ও রাজনীতিবিদও ছিলেন প্রতিনিধি দলে। বৈঠকে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বাংলাদেশের নির্বাচন এবং মানবাধিকার পরিস্থিতিসহ বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

বিএনপির প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ঘণ্টাব্যাপী এই বৈঠকে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা সমস্যা, মানবাধিকার পরিস্থিতি, একাদশ সংসদের বির্তকিত নির্বাচন, অর্থনৈতিক অবস্থা প্রভৃতি বিষয় আলোচনা হয়।

বৈঠকে বিএনপির পক্ষ থেকে বৃটিশ প্রতিনিধি দলকে দলের কারাবন্দি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং তার স্বাস্থ্যের অবনতিশীল অবস্থা জানানো হয়।

বৈঠকের পর স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী এক ব্রিফিংয়ে বলেন,  মূলত বাংলাদেশের প্রকৃত অবস্থাটা কী তারা (বৃটিশ প্রতিনিধি) আমাদের কাছে জানতে চেয়েছে। আমরা বাস্তব অবস্থাটা তুলে ধরেছি। আলোচনায় অনেক ইস্যুর মধ্যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি গুরুত্ব পেয়েছে। তারা অনুধাবন করতে পারছে যে, বিষয়টি বাংলাদেশের রাজনীতিতে বড় ধরনের একটা ইস্যু হয়ে দাঁড়িয়েছে। দেশনেত্রীর মুক্তির বিষয় যেমন রাজনীতির সাথে অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত, তেমনি বাংলাদেশের গণতন্ত্রের সাথেও ওতপ্রোতভাবে জড়িত।

তিনি বলেন, দেশে যে নির্বাচন হয়ে গেলো তা যে গ্রহণযোগ্য হয়নি দেশে-বিদেশে, এটার সমাধান কি হতে পারে, এটার থেকে কীভাবে আমরা বেরিয়ে আসতে পারি তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এছাড়া দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি, দেশের অর্থনীতি, দেশের বিচার ব্যবস্থা, রোহিঙ্গা সমস্যার নিয়েও আলোচনা হয়েছে।

বৃটিশ প্রতিনিধি দলের সদস্যরা খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে কি বলেছেন জানতে চাইলে খসরু বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে যে অন্যায়ভাবে জেলে রাখা হয়েছে তা আমরা বিভিন্নভাবে তুলে ধরেছি, এ ব্যাপারে তো ইউনাইটেড নেশন থেকে শুরু করে বিভিন্ন দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থা উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। উনার স্বাস্থ্যগত দিক থেকে তার মুক্তির বিষয়টা, আইনগতভাবে কেনো মুক্তি হচ্ছে না এটা এখন সকলের কাছে প্রশ্ন। খালেদা জিয়ার মুক্তি না হওয়ায় তারা (বৃটিশ প্রতিনিধিদল) উদ্বেগও প্রকাশ করেছে। তার মুক্তির সাথে গণতন্ত্র, মানবাধিকার, আইনের শাসন কোনো কিছুই আলাদা করে দেখার সুযোগ নাই। বৃটিশ প্রতিনিধি দল রোহিঙ্গা সমস্যা দ্রুত সমাধানও চায় বলেও জানান তিনি।

বৈঠকে আরো ছিলেন স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আবদুল মঈন খান, কেন্দ্রীয় নেতা জহিরউদ্দিন স্বপন, ফাহিমা নাসরিন মুন্নী, তাবিথ আউয়াল, জেবা খান, একাদশ সংসদের সংসদ সদস্য জিএম সিরাজ, মোশাররফ হোসেন, জাহিদুর রহমান জাহিদ, রুমিন ফারহানা। 

প্রসঙ্গত, গত ১৪ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সফরে আসেন ব্রিটিশ পার্লামেন্টের এ প্রতিনিধি দল। ২০ সেপ্টেম্বর তাদের দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ