ঢাকা, বুধবার 2 October 2019, ১৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

কাশ্মীর পরিস্থিতি সম্পর্কে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উচিত সত্য কথা বলা---ওয়াইসি

১ অক্টোবর, পার্সটুডে : ভারতের মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল মুসলেমিন বা ‘মিম’ প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এমপি বলেছেন, কাশ্মীর পরিস্থিতি সম্পর্কে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উচিত সত্য কথা বলা। তিনি গত সোমবার হায়দ্রাবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে ওই মন্তব্য করেন। 

গত রোববার ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ দাবি করেন, কাশ্মীরে কোনও বিধিনিষেধ নেই। এপ্রসঙ্গে তিনি বিরোধীদের সমালোচনা করে বলেন, নিষেধাজ্ঞা কোথায়? এটি কেবল আপনাদের মনের মধ্যে আছে। কোনও বিধিনিষেধ নেই। কেবল অপপ্রচার করা হচ্ছে।’ আসাদউদ্দিন ওয়াইসি আজ সেই প্রসঙ্গে ওই মন্তব্য করেছেন।

ওয়াইসি বলেন, ‘অমিত শাহ সাহেব ভুল কথা বলছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার সুবাদে তাঁর ভুল বলা উচিত নয়। সত্যি কথা বলা উচিত। এবং সত্যি এটাই যে, কংগ্রেসের নেতা গুলাম নবী আজাদ যিনি জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী, তাঁকে দু’বার রাজ্যে যেতে বাধা দেয়া হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের অনুমতি নিয়ে তাকে সেখানে যেতে হয়েছে। সুপ্রিম কোর্ট বলেছিল রাজনৈতিক কোনও কথা না বলার জন্য। রাজ্যের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতির মেয়েকে সুপ্রিম কোর্ট থেকে অনুমতি নিতে হয়েছিল। সিপিএমের মহাসচিব সীতারাম ইয়েচুরিকে তাঁর দলীয় অসুস্থ এক বিধায়ককে চিকিৎসার জন্য আনতে সুপ্রিম কোর্টের অনুমতি নিতে হয়েছে। সুতরাং, যেসব কথা উনি (স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী) বলছেন, তা সত্যি কথা বলছেন না। সংসদে উনি ভুল বলেছিলেন যে, ফারুক আব্দুল্লাহ মুক্ত আছেন। কিন্তু ঘটনা এটাই যে ফারুক আব্দুল্লাহকে জননিরাপত্তা আইনে আটক রাখা হয়েছে।’

কাশ্মীরে নিষেধাজ্ঞা নেই বলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ যে মন্তব্য করেছেন সেই প্রসঙ্গে ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি বলেন, ‘যদি উনি সত্যি কথা বলেন তাহলে কাশ্মীরে অঘোষিত জরুরি অবস্থা কেন? সেখানকার আপেল বিক্রেতারা কি আপেল বিক্রি করতে চাচ্ছেন না? কেন সেখানে স্কুল খুলছে না। উনি (স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী) যেটা বলছেন, নিষেধাজ্ঞা মনে রয়েছে। যদি সেটা সত্যি হয় তাহলে সেল ফোনকে কেন খুলে দেয়া হচ্ছে না? কে আপনাকে বাধা দিচ্ছে?’ যদি উনি ভাবেন এভাবে ভুল কথা বললেও সবাই সত্যি বলে মনে করবে তা ঠিক নয়। মানুষ তা সত্যি মনে করবে না বলেও ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এমপি মন্তব্য করেন। 

এ প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের ‘বন্দী মুক্তি কমিটির’ সাধারণ সম্পাদক ছোটন দাস গত (সোমবার) রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘মন্ত্রী অমিত শাহ সম্পূর্ণভাবে মিথ্যে কথা বলছেন। কারণ এখনও পর্যন্ত কাশ্মীরে সমস্ত ধরণের যে যোগাযোগ ব্যবস্থা তা বন্ধ রয়েছে। অমিত শাহ যদি ঠিক কথা বলে থাকেন তাহলে জেলে আছেন, যাদেরকে অন্তরীণ করে রাখা হয়েছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের, পরিস্থিতি যদি স্বাভাবিক থাকে তাহলে তাঁদের মুক্তি দিক। বিমানে করে কাশ্মীরের বাইরে যাদেরকে নিয়ে আসা হয়েছে যদি স্বাভাবিক অবস্থা থাকে তাঁদের ডিটেনশনে রাখা হয়েছে কেন? হাজার হাজার মানুষকে ডিটেনশন করা হচ্ছে কেন?’

তিনি বলন, ‘আসলে অমিত শাহরা ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের সময় মিথ্যেবাদীর আচরণ করেছেন আজও সেই ওনাদের পূর্বপুরুষের পদাঙ্ক অনুসরণ করে মিথ্যাচার করে যাচ্ছেন। কাশ্মীরের মানুষ তার উত্তর দেবেন। বাকি ভারতের গণতান্ত্রিক মানুষও তার উত্তর দেবেন।’ ইতোমধ্যেই সারা পৃথিবীজুড়ে গণতান্ত্রিক মানুষ এই মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছেন এবং জাতিসঙ্ঘের বৈঠকেও তা প্রমাণিত হয়েছে বলেও ‘বন্দী মুক্তি কমিটির’ সাধারণ সম্পাদক ছোটন দাস মন্তব্য করেন। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ