ঢাকা, মঙ্গলবার 8 October 2019, ২৩ আশ্বিন ১৪২৬, ৮ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

কাশ্মীর ইস্যুতে উদ্বেগ মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী এলিজাবেথ ওয়ারেনের

৭ অক্টোবর, এনডিটিভি : ভারত-যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের নেপথ্যে রয়েছে গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ, একথা উল্লেখ করে তিনি এই উদ্বেগের কথা জানান। এনিয়ে মার্কিন ডেমোক্রেটিক দল থেকে দ্বিতীয় কোনো  প্রেসিডেন্ট প্রার্থী কাশ্মীরের দমনপীড়ন নিয়ে কথা বললেন। এর আগে ডেমোক্রেট সিনেটর বানি স্যান্ডার্সও একই বিষয়ে উদ্বেগের কথা জানিয়েছিলেন। এক টুইটবার্তায় এলিজাবেথ জানান, কাশ্মীরের জনগণের অধিকারের প্রতি অবশ্যই সম্মান দেখাতে হবে। ম্যাসাচুসেটসের এই সিনেটর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একজন কড়া সমালোচক এবং প্রায়ই তার বিরুদ্ধে অগণতান্ত্রিক আচরণের অভিযোগ তোলেন।

গতমাসে একটি র্যালিতে অংশ নিয়ে মার্কিন সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্স বলেছিলেন, ‘কাশ্মীরের চলমান অচলাবস্থায় আমি গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। অতিদ্রুত এর অবসান ঘটাতে হবে এবং মার্কিন সরকারকে অবশ্যই মানবাধিকার আইনের প্রতি সম্মান দেখিয়ে এর বিরুদ্ধে স্পষ্টভাবে কথা বলতে হবে। ভারমন্ট থেকে নির্বাচিত এই সিনেটর গতমাসে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর যুক্তরাষ্ট্র সফরের সময় এই মন্তব্য করেছিলেন। স্থানীয় একটি সংবাদপত্রের একটি কলামে তিনি কাশ্মীর ইস্যুতে নীরব থাকায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সমালোচনা করেন। এদিন দুদেশের নেতা টেক্সাসে হাউডি মোদী ইভেন্টে অংশ নেন। এএফপি জানায়, হিউস্টন ক্রনিকলে স্যান্ডার্স লিখেছেন, ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের উপর বর্বর নির্যাতনে প্রেসিডেন্টের মৌনতা বিশ্বের কর্তৃত্ববাদী নেতাদের যা খুশি তাই করতে উদ্বুদ্ধ করবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ