ঢাকা, মঙ্গলবার 8 October 2019, ২৩ আশ্বিন ১৪২৬, ৮ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

ডাঙ্গী গ্রাম’র ৩ কি: মি: কাঁচা সড়ক মরণফাঁদ!

মসিয়ার রহমান কাজল বেনাপোল: যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলার ৭ নং নাভারন ইউনিয়নের, ৪ নং ওয়ার্ডের রঘুনাথপুর ডাঙ্গী-বাগ  গ্রাম’র ৩ কি: মি:  কাঁচা সড়ক দিয়ে সারা বছর যশোর জেলা শহরে যাতায়ত করে কয়েক হাজার মানুষ। দেশ যখন উন্নয়নের মহাসড়কে" বিগত ৩০ বছর পার হলেও এখনও পর্যন্ত এই  গ্রামের কাচা সড়কটিতে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। উন্নয়ন দেখেনি গ্রামের সাধারণ মানুষ, প্রতিনিয়ত স্কুলগামী শতশত ছাত্র ছাত্রী ও গ্রামের সাধারণ মানুষকে ৩ কি.মি কাঁচাসড়ক পাড়ি দিয়ে পায়ে হেটে কষ্ট যাতায়াত করতে হয় স্কুল কলেজ ও শহরে। বর্ষা মৌসুম আসলে গ্রামের কাঁচা সড়কের ওপরই হাঁটু সমান পানি কাদায় পরিপূর্ন থাকে। বিপাকে পড়তে হয় স্কুলগামী ছাত্রছাত্রী ও গ্রামের সাধারন জনগনকে। অনেকে আবার কস্টের ভয়ে গ্রাম ছেড়ে যেতে চান না শহরে। এলাকাবাসি জানান, ঝিকরগাছা উপজেলার নাভারনে আকিজ বিড়ি ফেক্টরি , শহরে বেশ ক’টি ইন্ডাস্টি থাকলেও এলাকাগুলোতে সাধারন মানুষ কস্টের ভয়ে শহরে যেতে চান না গ্রামের মানুষ। এই গ্রামের উৎপাদিত ফসল ঘরে তোলাও কষ্টকর ব্যাপার। গ্রামের মানুষ তাদের উৎপাদিত ফসল শহরে বিক্রি করতেও যেতে পারেন না। শহরে যেতে গেলে গরু গাড়ি অথবা সাইকেল একমাত্র বাহন। গরু গাড়িতে ৩ জন বসলে বাকি তিনজনকে ঠেলতে হয় । এভাবে পালাক্রমে গরুর গাড়ী ঠেলে যেতে হয় শহরে। ফসল কাটার মৌসুম আসলে অত্র গ্রামের কৃষকেরা একমাত্র এই রাস্তার উপর ভর করে ধান মেড়ে যানবাহনে করে বাড়ীতে আনতে হয়। কাঁচা রাস্তাটি বর্তমানে খনাখন্দকে ও গর্ত সৃষ্টি হয়ে বেহাল দশার কারণে ট্রলি, নসিমন, ভূটভূটি, ভ্যান এমনটি গরুর গাড়ীও ঠিকমত চলতে পারছে না। রাস্তাদিয়ে আসার সময় গাড়ীর চাকা ঠিকমত না চলতে পারায় ট্রলি নসিমন করিমন উল্টে দুর্ঘটনার শিকার হতে মানুষ মারাত্মক আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। গ্রামের স্কুল শিক্ষিকা নাজমা খাতুন জানান- বর্ষা মৌসুমে স্কুলের ছোট ছোট বাচ্চাদের নিয়ে দুর্ভোগে পড়তে হয়, কারন বর্ষা মৌসুমে স্কুলভ্যান গ্রামে যেতে পারে না কাচারাস্তায় ঁহাটুসমান কাদায় পরিপুর্ণ থাকে প্রায়ই স্কুলের বাচ্চারা স্কুলে যেতে পারে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ