ঢাকা, বৃহস্পতিবার 10 October 2019, ২৫ আশ্বিন ১৪২৬, ১০ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

কুষ্টিয়ায় এলাকাবাসীর বিক্ষোভের মুখে বুয়েট ভিসি ॥ পুলিশের সাথে সংঘর্ষে আহত ৫

কুষ্টিয়া ও কুমারখালী সংবাদদাতা : কুষ্টিয়ার কুমারখালীর রায়ডাঙ্গায় আবরার ফাহাদের কবর জিয়ারত করেছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) ভিসি অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম। গতকাল বুধবার বিকেল ৫টার দিকে কুমারখালীর রায়ডাঙ্গায় ফাহাদের বাড়িতে পৌঁছায় তিনি। বাড়িতে প্রবেশকালে উপস্থিত এলাকার মানুষজন বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। এ সময় গ্রামবাসীকে সরাতে গেলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এতে আবরারের ছোট ভাই আবরার ফায়াজসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন। বুধবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলায় রায়ডাঙ্গা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গ্রামবাসীর অবস্থা বেগতিক দেখে পাহারা দিয়ে নিরাপদে সরিয়ে নেয় পুলিশ।
ওই বাড়িতে পৌঁছার পর ভিসি ফাহাদের দাদা আব্দুল গফুর ও বাবা বরকত উল্লাহর সঙ্গে কবরস্থানে যান এবং জিয়ারত করেন তিনি। তবে তিনি রায়ডাঙ্গায় মাত্র ১৫ মিনিটের মতো অবস্থান করেন। পরে এলাকাবাসীর তোপের মুখে দ্রুত স্থান ত্যাগ করতে বাধ্য হন।
ভিসির উপস্থিতিতেই বিক্ষুব্ধ জনতা ফাহাদের খুনিদের ফাঁসির দাবিতে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দিতে দেখা গেছে।
এর আগে তার পরিবারের সঙ্গে দেখা করার জন্য বিকেল তিনটার দিতে কুষ্টিয়া সার্কিট হাউসে পৌঁছান ভিসি। সেখান থেকে কুমারখালী উপজেলায় রায়ডাঙ্গা গ্রামে যান তিনি।
এদিকে ভিসি আসছেন সে খবরে আগে থেকেই ওই এলাকায় অবস্থান নেয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। বাড়ানো হয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা।
বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ভিসির গাড়িবহর আবরারের কবরের উদ্দেশ্যে যাওয়ার পথে গ্রামবাসীর বাধার মুখে পড়ে। এ সময় গ্রামবাসীর বাধা সরিয়ে ভিসিকে সামনের দিকে নিয়ে যেতে চাইলে পুলিশের সঙ্গে গ্রামবাসীর সংঘর্ষ হয়। এতে আবরারের ছোট ভাই আবরার ফায়াজসহ পাঁচজন আহত হয়।
এদিকে, অবস্থা বেগতিক দেখে পেছনের দিকে সরে যায় পুলিশ ও ভিসির গাড়ি বহর। সেই সঙ্গে পুলিশি পাহারায় ভিসিকে ওই গ্রাম থেকে বের করে নিয়ে আসা হয়। পরে পুলিশের গাড়ি ও ভিসির গাড়ি বহর শহরের দিকে চলে যায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ