ঢাকা, শনিবার 12 October 2019, ২৭ আশ্বিন ১৪২৬, ১২ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

ঢাকা মাতিয়ে বাংলাদেশ ফুটবল দল এখন কলকাতায়

স্পোর্টস রিপোর্টার : এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন কাতারের কাছে হারলেও আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরেনি বাংলাদেশের। বরং আরও ভালো করার বিশ্বাস মনের মধ্যে গেঁথে নিয়েছে তারা। এই ম্যাচের চমৎকার পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা ধরে রাখার লক্ষ্য নিয়ে গতকাল শুক্রবার কলকাতায় পৌঁছান জেমি ডের শিষ্যরা। আগামী ১৫ অক্টোবর সল্ট লেক স্টেডিয়ামে ভারতের মুখোমুখি হবেন জামাল ভূঁইয়ারা।বৃহ্স্পতিবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে কাতারের কাছে ২-০ গোলে হেরেও জেমি তৃপ্তির জায়গা খুঁজে পাচ্ছেন। এই পারফরম্যান্স ভারত ম্যাচেও দেখতে চাইছেন ইংলিশ কোচ।

দেশ ছাড়ার আগে তিনি বলেন, ‘কাতার ম্যাচের পারফরম্যান্স যদি ধরে রাখা যায়, তাহলে আমরা ভারতের বিপক্ষেও ভালো করতে পারবো।’ দলের সবাইকে উজ্জীবিত থাকতে পরামর্শ দিলেন জেমি, ‘খেলোয়াড়দের এজন্য উজ্জীবিত হয়ে খেলতে হবে, যেন ভারতের বিপক্ষে আমরা পয়েন্ট নিতে পারি।’ অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়াও কোচের সঙ্গে একমত। শক্তিশালী ভারতের বিপক্ষেও হাল না ছাড়ার মানসিকতা দেখতে চান সতীর্থদের কাছে, ‘ভারতের বিপক্ষেও আমরা লড়াই করবো, কোনোভাবেই হাল ছাড়বো না। খেলোয়াড়রা সেটাই চাইছে। কাতারের বিপক্ষে যদি লড়াই করতে পারি, তাহলে কেন ভারতের বিপক্ষে পারবো না। ওখানে আমরা জেতার জন্যই যাচ্ছি।’অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার ইয়াসিন খান কাতার ম্যাচে গোল মিস নিয়ে আফসোস করলেন, ‘কাতার শক্তিশালী দল। ওদের সঙ্গে আমাদের অবস্থানে অনেক ব্যবধান। তাদের সঙ্গে যে লড়াই করেছি, সেটাই বেশি। আসলে আমরা অনেক গোলের সুযোগ নষ্ট করেছি। ফিনিশিং নিয়ে আরও কাজ করা দরকার। এই পারফরম্যান্সে আমরা খুশি। তবে শেষ মিনিটে গোল খাওয়া ঠিক হয়নি।’মাঠে এত দর্শক দেখে বিস্মিত ইয়াসিন। তাদের খুশি করতে না পারায় আফসোস এই ডিফেন্ডারের, ‘অন্তত এক গোল করতে পারলে ভালো হতো। তাহলে হয়তো আরও গোল হতে পারতো। দর্শকরাও খুশি হতো। আসলে বৃষ্টির মধ্যে এত দর্শক হবে, আশা করিনি। সবশেষ বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের ফাইনালে এত দর্শক দেখেছি। ম্যাচের আগেই কোচ বলেছেন খেলা উপভোগ করতে, লড়াই করতে। হার না মানার মানসিকতা নিয়ে যেন খেলি, তাতে দর্শকরা খুশি হবে। আমরা লড়াই করেছি, এটাই এখন সান্ত¡না।’

ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে আশাবাদী ইয়াসিন, ‘ওখানে কোন ফরমেশনে খেলা হবে, বলতে পারছি না। সবার ফিটনেস ভালো। ওখানে লড়াই হবে। এই পারফরম্যান্স করতে পারলে পয়েন্ট নিয়ে আসতে পারবো। আবহাওয়া হয়তো এমনই থাকবে। ওখানে দর্শক থাকবে অনেক। তারা আমাদের প্রতিপক্ষ দলের হলেও সেটা বাধা হবে না। এখন আমরা আগেই হার মানতে নারাজ। খেলোয়াড়দের মানসিকতায় অনেক পরিবর্তন এসেছে।’দুই ম্যাচ শেষে প্রথম পয়েন্টের আশায় ভারত গেছে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় ধাপে আগের ম্যাচে তারা হেরেছিল আফগানিস্তানের কাছে। ‘ই’ গ্রুপের শীর্ষে ৩ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট পাওয়া কাতার। ওমান ২ ম্যাচই জিতে ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে। আফগানদের অর্জন ৩ ম্যাচে ৩ পয়েন্ট। ভারত ২ ম্যাচে ১ পয়েন্ট নিয়ে ঠিক বাংলাদেশের ওপরে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ