ঢাকা, মঙ্গলবার 19 November 2019, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

সৌদি সফরে পুতিন

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: দীর্ঘ এক যুগ পর সৌদি আরবে সফরে গেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।মধ্যপ্রাচ্যে প্রভাব বাড়াতেই তার এই সফর বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

সোমবার সৌদিতে অবস্থান কালে পুতিন বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ, যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। এসময় তারা দুই দেশেরে মধ্যে চলমান বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরো দৃঢ় করার ব্যাপারে গুরুত্বারোপ করেন। আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার জন্য দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন বাদশাহ ও পুতিন।

এ সময় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকার যেকোনো সমস্যা কূটনৈতিক উপায়ে সমাধানের আহ্বান জানান। প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেন, সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলা করার পাশাপাশি কূটনৈতিক উপায়ে মধ্যপ্রাচ্যে ও উত্তর আফ্রিকার সমস্যাবলী সমাধানের প্রতি রাশিয়ার সমর্থন রয়েছে।  তিনি বলেন, মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি ও নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠা এবং বিশ্বের জ্বালানী সরবরাহ নির্বিঘ্ন রাখার জন্য রাশিয়া সব রকম সহযোগিতা করতে প্রস্তুত এবং এ সহযোগিতা ইতিবাচক ফল বয়ে আনবে।

সাক্ষাতে সৌদি যুবরাজ বলেন, জ্বালানী খাতে তেহরান ও মস্কোর মধ্যকার সহযোগিতা মধ্যপ্রাচ্যে স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠায় সহায়ক হবে।

প্রিন্স বলেন, জ্বালানি ক্ষেত্রে দুই দেশের সম্পর্ক স্থিতিশীলতা ধরে রাখতে সহায়তা করবে।

২০১৫ সালে সিরিয়ায় সৈন্য মোতায়েনের মাধ্যমে মধ্যপ্রাচ্যে প্রভাব বিস্তার শুরু করে রাশিয়া। দেশটির সহায়তায় সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট আসাদ এখনো ক্ষমতায় টিকে আছেন। যুক্তরাষ্ট্র আসাদের বিরোধিতা করে সৈন্যও মোতায়েন করেছিল।কিন্তু শেষ পর্যন্ত সৈন্য প্রত্যাহার করতে বাধ্য হয়।

সৌদি সফর শেষে আজ মঙ্গলবার সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই) সফরে যাওয়ার কথা পুতিনের। সূত্র: গলফ নিউজ

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ