ঢাকা, শনিবার 16 November 2019, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

ফেঁসে যাচ্ছেন রাশেদ খান মেনন

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: স্থানীয় এমপি হিসেবে মতিঝিল ও আরামবাগের বিভিন্ন ক্লাবে ক্যাসিনো তথা জুয়ার আসর পরিচালনার বিষয়ে অবগত ছিলেন সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও  রাশেদ খান মেনন।তাকে অবগত করে সম্মতি নিয়েই ক্যাসিনো খোলা হয়।আর এর বিনিময়ে প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা মাসোয়ারা নিতেন তিনি।

সম্প্রতি ক্যাসিনো কাণ্ডে গ্রেফতার যুবলীগের দুই নেতা ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের বহিস্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট ও সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া এসব তথ্য জানিয়েছেন।তাই জিজ্ঞাসা করা হতে পারে তাকেও।আর এ বিষয়টি আঁচ করতে পেরেই ইতোমধ্যে সরকার বক্তব্য দেয়া শুরু করেছেন তিনি।সুতরাং ক্যাসিনো কাণ্ডে ফেঁসে যেতে পারেন মহাজোট সরকারের সাবেক মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন।

রিমান্ডে খালেদ জানিয়েছেন, ক্যাসিনো কারবার থেকে প্রতি মাসে মেনন চার লাখ টাকা নিতেন। এ ছাড়া সম্রাটের কাছ থেকেও অর্থ নিতেন তিনি। তবে প্রতি মাসে প্রাপ্ত টাকার অঙ্ক বাড়াতে মেনন একাধিকবার ডেকে চাপও দিয়েছেন বলে দাবি করেন খালেদ।  মেননকে  ফকিরাপুলে ক্যাসিনো চালানো ইয়ংমেনস ক্লাবের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান ছিলেন রাশেদ খান মেনন। ওই ক্লাবের সভাপতি ছিলেন খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া। সংশ্নিষ্ট একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র এ তথ্য জানায়।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ