ঢাকা, মঙ্গলবার 29 October 2019, ১৪ কার্তিক ১৪২৬, ২৯ সফর ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

শেয়ারবাজারে বড় দরপতন

স্টাফ রিপোর্টার: অব্যাহত দরপতনে নাকাল দেশের শেয়ারবাজারে। আগের কার্যদিবসের ধারাবাহিকতায় সোমবারও প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বড় দরপতন হয়েছে। সেই সঙ্গে চলছে লেনদেনে খরা। শেয়ারবাজারের চলমান দরপতনের কবলে পড়ে নিঃস্ব হওয়া ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে আজ (মঙ্গলবার) সাংবাদিক সম্মেলন করার ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদ। সংগঠনের সভাপতি মিজানুর রশীদ চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
গতকাল সোমবার লেনদেনের শুরু থেকেই একের পর এক প্রতিষ্ঠানের দরপতন হতে থাকে। শেষ দিকে এসে পতনের মাত্রা আরও বাড়ে। তবে দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইতে ৬৮টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ২৪৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের। আর ৩৮টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।
বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমার কারণে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ৫৩ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ৬৯৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ ১৬ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৭৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর ডিএসই-৩০ সূচক ১৯ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৬৪৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে। মূল্য সূচকের বড় পতন হলেও ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ আগের কার্যদিবসের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে। অবশ্য গত রোববার প্রায় পাঁচ মাস বা ১০৪ কার্যদিবসের মধ্যে সর্বনিম্ন লেনদেন হয়।
লেনদেন খরার পরের দিন গতকাল সোমবার বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৩০৫ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ২৫৭ কোটি আট লাখ টাকা। সে হিসাবে লেনদেন বেড়েছে ৪৮ কোটি ৮১ লাখ টাকা। বাজারটিতে টাকার পরিমাণে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে ন্যাশনাল টিউবসের শেয়ার। কোম্পানিটির ১৫ কোটি ৩৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১৩ কোটি ৭৭ লাখ টাকার। ৯ কোটি ৪৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকস।
অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৩৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ৩২৫ পয়েন্টে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১৩ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেয়া ২৫৪ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৬৩টির, কমেছে ১৭৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৬টির।
এদিকে শেয়ারবাজারে চলমান দরপতনের কবলে পড়ে নিঃস্ব হওয়া ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে আজ মঙ্গলবার সাংবাদিক সম্মেলনের করবে বাংলাদেশ বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদ। বেলা ১১টায় এই সংবাদিক সম্মেলন হবে বলে নিশ্চিত করেছেন সংগঠনের সভাপতি মিজানুর রশীদ চৌধুরী।
তিনি বলেন, অব্যাহত দরপতনের কবলে পড়ে বিনিয়োগকারীরা প্রতিদিন পুঁজি হারাচ্ছেন। পুঁজি হারিয়ে লাখ লাখ বিনিয়োগকারী নিঃস্ব হচ্ছেন। দরপতনের প্রতিবাদে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সামনে বিনিয়োগকারীরা বিক্ষোভও করতে পারছেন না। মামলা করে ডিএসই আমাদের বিক্ষোভ করতে দিচ্ছে না। শেয়ারবাজারের এখন যে অবস্থা তাতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ ছাড়া বিনিয়োগকারীদের রক্ষা করা যাবে না।
তিনি জানান, সাংবাদিক সম্মেলনে পুঁজিবাজারে দীর্ঘ মেয়াদে স্থিতিশীলতা আনয়ন, টানা ধসের কারণ অনুসন্ধান, কারসাজির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) পুনর্গঠনসহ বেশ কিছু দাবি জানানো হবে।
এর আগে দরপতনের প্রতিবাদে দিনের পর দিন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সামনে বিনিয়োগকারীরা বিক্ষোভ করায় গত ২৭ আগস্ট ডিএসইর পক্ষ থেকে মতিঝিল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। সাধারণ ডায়েরিতে বলা হয়েছে, ২৭ আগস্ট আনুমানিক দুপুর ২টা থেকে ৩টা পর্যন্ত বাংলাদেশ পুঁজিবাজার ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের ব্যানারে ৯/১০ জন লোক ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ লিমিটেডের সামনে ব্যানার ও মাইকসহ বিক্ষোভ মিছিল প্রদর্শন করে। যার ফলে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সম্মানিত সদস্য, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের যাতায়াত এবং অফিসের স্বাভাবিক কার্যক্রম সম্পাদনে বিঘœ ঘটে। এতে উল্লেখ করা হয়েছে, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সামনে বেশ কিছুদিন যাবত তারা এ ধরনের বিক্ষোভ প্রদর্শন করে আসছে এবং পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা ও পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সম্পর্কে সম্মান হানিকর মন্তব্য করছে।
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ মনে করে, এ ধরনের কার্যকলাপ দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত গ্রহণে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে এবং বহির্বিশ্বে বাংলাদেশ পুঁজিবাজারের ভাবমূর্তি ক্ষুণœ করছে। ফলে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে বিদেশি বিনিয়োগ নিরুৎসাহিত হচ্ছে- বলে জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে। এই জিডি করার পর বিনিয়োগকারীদের বিক্ষোভ বন্ধ হয়ে যায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ