ঢাকা, শুক্রবার 1 November 2019, ১৭ কার্তিক ১৪২৬, ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

সিআইএ সমর্থিত আফগান সেনারা যুদ্ধাপরাধ চালিয়েছে : এইচআরডব্লিউ  

৩১ অক্টোবর, বিবিসি, নিউইয়র্ক টাইমস : যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল ইন্টেলিজেন্স এজেন্সি (সিআইএ) সমর্থিত আফগান সেনারা যুদ্ধাপরাধ চালিয়েছে বলে এক নতুন প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে। প্রতিবেদনটি প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ)। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

এইচআরডব্লিউ’র অভিযোগ, সিআইএ সমর্থিত আফগান সেনারা জবাবদিহীতা ছাড়াই হত্যাকাণ্ড ও বড় ধরনের নিপীড়ন ঘটিয়েছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড, গুম ও স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে হামলা।

এর আগে জাতিসংঘ ও নিউ ইয়র্ক টাইমস আফগান আভিযানিক বাহিনীর বিরুদ্ধে নিপীড়নের অভিযোগ গুরুত্ব সহকারে তুলে ধরেছিল। সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানের মধ্যে শান্তি আলোচনা ভেস্তে যাওয়ার পর এইচআরডব্লিউ এই অভিযোগ তুললো।

যা আছে প্রতিবেদনে

এইচআরডব্লিউ’র প্রতিবেদনটি স্থানীয় বাসিন্দা ও অভিযানের প্রত্যক্ষদর্শীদের সাক্ষাতের ভিত্তিতে তৈরি করা হয়েছে। স্থানীয় কয়েকটি মানবাধিকার সংগঠনের বক্তব্যও নেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার এই প্রতিবেদনটি প্রকাশের আগেই তা হাতে পায় বিবিসি। এতে ২০১৭ সালের শেষ ও ২০১৯ সালের মাঝামাঝিতে সিআইএ সমর্থিত আফগান স্ট্রাইক ফোর্সের বিরুদ্ধে নিপীড়নের ১৪টি অভিযোগ আনা হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, এই সেনারা রাতে অভিযান চালিয়ে কোনও সতর্কতা ছাড়াই মানুষকে তাদের ঘর থেকে তুলে নিয়েছে। অভিযোগে আরও বলা হয়েছে, তালেবান নিয়ন্ত্রিত এলাকায় জঙ্গিদের চিকিৎসা দেয়ার কারণে তাদের টার্গেট করা হয়েছে, হত্যাকাণ্ড ও কাস্টডিতে থাকা মানুষ গুম হয়েছেন।

এছাড়া বেসামরিক নাগরিকদের বেআইনিভাবে টার্গেট করা হয়েছে দুর্বল গোয়েন্দা তথ্য, ভুল পরিচয় বা স্থানীয় রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বিতার কারণে। গত দুই বছরে এসব অভিযানে বেসামরিক হত্যাকা- নাটকীয়ভাবে বেড়েছে।

প্রতিবেদন অনুসারে, ২০০১ সাল থেকে সিআইএ যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর অভিযান থেকে পৃথকভাবে সন্ত্রাসদমন অভিযান করে আসছে। দেশটিতে জঙ্গিদের মোকাবিলায় গোয়েন্দা সংস্থাটি আধা সামরিক বাহিনীর সদস্য সংগ্রহ, প্রশিক্ষণ ও মোতায়েন করে। প্রতিবেদনে এক কূটনীতিক এই বাহিনীকে ‘ডেথ স্কোয়াড’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

২০১৭ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্র এসব বাহিনীকে নিজেদের সেনাদের উপস্থিতি ছাড়াই বিমান হামলার অনুমতি দিয়েছে বলে উল্লেখ করেছে এইচআরডব্লিউ। এসব অভিযানে বেশ কিছু আবাসিক ভবনে হামলা চালানো হয়েছে। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ