ঢাকা, শুক্রবার 15 November 2019, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

বিতর্কিত নাগরিকপঞ্জির পক্ষে ভারতের প্রধান বিচারপতি

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: ভারতের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বিতর্কিত নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি)'র পক্ষে সাফাই গেয়ে বলেছেন, ভারতে অবৈধভাবে বসবাসকারীদের চিহ্নিত করা প্রয়োজন। রোববার দিল্লিতে এক বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে তিনি এমন মন্তব্য করেন।তিনি এসময় জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি)-কে একটি ভবিষ্যতের নথি বলেও উল্লেখ করেন।

আসামে নাগরিকপঞ্জি থেকে বাদ পড়ে আতঙ্ক কাটাচ্ছেন ১৯ লাখেরও বেশি মানুষ। ফরেনার্স ট্রাইব্যুনাল থেকে সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত দৌড়েও যদি নাগরিক হিসেবে নিজেকে প্রমাণ না করা যায় তাহলে স্থান হবে কোথায়? ডিটেনশন ক্যাম্প নাকি অন্য দেশে। এসব চিন্তা ঘুরপাক খাচ্ছে বাদ পড়াদের মনে। এর মধ্যেই নাগরিকপঞ্জি নিয়ে এই মন্তব্য করলেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ।

‘পোস্ট কলোনিয়াল আসাম’ নামে ওই বইপ্রকাশ অনুষ্ঠানে প্রধান বিচারপতি গগৈ বলেন, নাগরিকপঞ্জি বর্তমানের নথি নয়। ১৯ লাখ নাকি ৪০ লাখ মানুষ বাদ পড়েছেন সেটা বড় প্রশ্ন নয়, নাগরিকপঞ্জি ভবিষ্যৎ নথির ভিত্তি।

প্রধান বিচারপতি এদিন আরও বলেন, দেশে কত মানুষ অবৈধভাবে বসবাস করছেন তা খুঁজে দেখার প্রয়োজন ছিল। সেটাই করেছে নাগরিকপঞ্জি।এর চেয়ে বেশি কিছু নয়।

নাগরিকপঞ্জি নিয়ে সংবাদমাধ্যমের দায়িত্বজ্ঞানহীন সংবাদ পরিবেশনেরও সমালোচনা করেন প্রধান বিচারপতি। নাগরিকপঞ্জি নিয়ে ওইসব খবরে পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে বলেই মন্তব্য করেন তিনি।

উল্লেখ্য, আসামে নাগরিকপঞ্জির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশিত হয়েছে ৩১ আগস্ট। এই তালিকায় রয়েছেন তিন কোটি ১১ লাখ ২১ হাজার চারজন। আর বাদ পড়েছেন ১৯ লাখ ছয় হাজার ৬৫৭ জন। বাদ পড়া ব্যক্তিরা ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে আবেদন করতে পারবেন। যেতে পারবেন সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্তও।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ