ঢাকা, মঙ্গলবার 5 November 2019, ২১ কার্তিক ১৪২৬, ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

নওগাঁয় আগাম আলু চাষে ভালো দাম পাওয়ার আশা করছেন কৃষকরা

মো. আককাস আলী, নওগাঁ : নওগাঁর মহদেবপুর উপজেলার ১০ ইউনিয়নের মাঠে মাঠে এখন আগাম আলু ক্ষেত পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন চাষীরা। ওইসব আলু চাষীরা ভালো দাম পাওয়ার আশা করছেন। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহযোগীতায় চলতি মৌসুমে এ উপজেলায় লক্ষ্য মাত্রার অতিরিক্ত জমিতে আলু চাষ হচ্ছে। আলু চাষে গত বছর ভালো দাম পাওয়ায় নতুন উদ্যোমে কৃষকরা এবার মাঠে নেমেছেন। উপজেলায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে এবার প্রায় ৪’শ হেক্টর বেশি জমিতে আলু চাষ হয়েছে। সূত্র মতে এ বছর উল্ল্যেখ যোগ্য পরিমানে স্থানীয় ও উন্নত জাতের ষাঁটাল আলু চাষ করেছেন এ উপজেলায় চাষীরা। এই আলুর উল্ল্যেখ যোগ্য বৈশিষ্ঠ হচ্ছে, রোপনের মাত্র ৫৫ থেকে ৬০ দিনের মধ্যে বাজার জাত করতে পারে চাষীরা। এর ফলে বাজারে এ আলুর ভাল দাম পাওয়া যায় বলে উপজেলার হাতুড় গ্রামের আলু চাষি আমির হামজা, ঈশ্বরপুর গ্রামের সিদ্দিক সরদার, পয়নারি গ্রামের রফিকুল ইসলাম ও গোপালপুর গ্রামের গৌরাঙ্গ কুমার জানান, তারা অনেক বছর ধরে আলু চাষ করে আসছেন। এবারও বেশ কিছু জমিতে তারা আলু চাষ করছেন। বিগত বছরের ন্যায় এবার আলুর রোগ বালায় কম হওয়ার ফলে আলুর গাছ ভাল হয়েছে। গাছ ভাল হওয়ায় এবার আলুর বাম্পার ফলনের আশা করছেন ওইসব চাষীরা। এসব চাষীদের মতে ফলন ভালো হলে প্রতি বিঘা জমিতে ৬০ থেকে ৭০ মণ আলু উৎপাদন হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। যার বাজার মূল্য প্রায় দেড় লাখ টাকা। সূত্র মতে ১ বিঘা জমিতে আলু চাষে সব মিলে খরচ হয় প্রায় ১১ হাজার টাকা। রোপণের সর্বোচ্চ ৮০ দিনের মধ্যে আলু চাষের মাধ্যমে চাষীরা আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ায় এবার আলু চাষে কৃষকরা বেশি ঝুকে পরেছে। উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ শ্রী অরুন চন্দ্র রায় জানান, চলতি মৌসুমে ১২’শ হেক্টর জমিতে আগাম জাতের আলু চাষের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারন করা হলেও এর অতিরিক্ত প্রায় ৪’শ হেক্টর জমিতে আলু চাষ করছে চাষীরা। উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ অরুন চন্দ্র রায় বলেন, আলু চাষিদের সব ধরনের সহযোগীতা ও পরামর্শ দেয়ার জন্য উপজেলা কৃষি অফিসের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তারা উপজেলার ১০ ইউনিয়নের প্রতিটি ব্লকে কৃষকদের নিয়ে উঠান বৈঠক ও রোগ বালাই সম্পর্কে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করছেন। শেষ পর্যন্ত আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে এ উপজেলায় এবার আলুর বাম্পার ফলন হবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ