ঢাকা, শুক্রবার 8 November 2019, ২৪ কার্তিক ১৪২৬, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

নিজেকে আরও পরিণত করতে চাই -মিরাজ

স্পোর্টস রিপোর্টর: ভারতের বিপক্ষে টেস্ট দিয়ে শুরু হচ্ছে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ যাত্রা। ভারতের মাটিতে তাদের বিপক্ষে টেস্ট খেলাটা বেশ কঠিন। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের পাঁচটি ম্যাচ খেলে সবগুলোতেই জয় তাদের। ফলে বাংলাদেশ দলের জন্য কঠিন সময় অপেক্ষা করছে সামনে। ভারতের মাটিতে নিঃসন্দেহে কঠিন পরীক্ষার মুখেই পড়েতে হচ্ছে টাইগারদের। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিতে দলের সঙ্গে যোগ দিতে আজ দুপুরে ঢাকা ছাড়বেন টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক, মেহেদী হাসান মিরাজ, সাদমান ইসলাম সহ টেস্ট দলের বাকি সদস্যরা। সাকিব-তামিম ছাড়াই ভারতের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। তবে সংক্ষিপ্ত এই ফরম্যাটের পর টাইগারদের সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ হবে টেস্ট সিরিজ। সেজন্য টাইগারদের মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকার কথা জানিয়েছেন টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মাদের আটকাতে হলে স্পিন দিয়েই কাবু করতে হবে। সাকিবের অনুপস্থিতিতে সেই চাপ নিতে হবে মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলামকেই। তবে টেস্ট সিরিজের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছেন স্পিন বোলিং অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। 

দিবা-রাত্রির টেস্টের জন্য গতকাল মিরপুরে একাডেমি মাঠে গোলাপি বলে অনুশীলন করেন তিনি। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মিরাজ। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ নিয়ে মিরাজ জানান, ভারতের বিপক্ষে ২০ উইকেটে নেয়াটা কঠিন এক চ্যালেঞ্জ। সেজন্য স্পিনারদের বাড়তি দায়িত্ব নিতে হবে বলে তিনি মনে করেন। মিরাজ বলেন, ‘আমাদের বোলারদের জন্য এটা বড় একটা চ্যালেঞ্জ ২০ উইকেট তুলে নেয়াটা। আর কতটুকু আমরা মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিয়েছি বা কতটুকু মানসিকভাবে এগিয়ে থাকবো এটা আমাদের অনুশীলনের ওপর নির্ভর করছে। বিশেষ করে সাকিব ভাই আমাদের দলের জন্য বড় একটা সুবিধা কিন্তু তিনি খেলবেন না। আর অবশ্যই স্পিনারদের ওপর একটা বাড়তি চাপ থাকবে। তাইজুল ভাই, নাঈম যারাই স্পিনার হিসেবে খেলব, তাদের জন্য বাড়তি চাপ থাকেবে।’ এই কঠিন কাজটাকে ঠিকভাবে পালন করতে হলে নিয়ম মেনে বোলিং করেতে হবে। মিরাজ বলেন, ‘আমরা যদি ভালো লাইন লেন্থে বল করতে পারি তাহলে হয়তো ওদের ব্যাটসম্যানদের বিপদে ফেলা যাবে, সুবিধা পাব। তারপরও আমাদের স্পিনার যারা আছে চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। অবশ্যই ওরা ওয়ার্ল্ড ক্লাস ব্যাটসম্যান। আমরা মেন্টালি কতটা শক্ত থাকছি এটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’ তবে গোলাপি বল নিয়ে এখনো আলাদা করে ভাবেননি মিরাজ। তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত আলাদা করে কোনো কাজ করছি না শুধু মানিয়ে নেয়ার অনুশীলন করছি। আশা করি ভারতে গিয়ে কোচদের সাথে কথা বলব। তাদের সাথে আলোচনা করব কিভাবে আরও ভালো করা যায়।’ নিজেকে আরও বেশি পরিণত করে দীর্ঘ দিন ক্রিকেট খেলতে চানমিরাজ। আলাদা করে নিজের দুর্বলতা নিয়ে কাজও করেছেন তিনি। মিরাজ বলেন, ‘আমি শেষ এক সপ্তাহ খুব ভালো একটা ট্রেনিং করেছি। আমি ফিজিক্যাল ও ফিটনেস নিয়ে কাজ করেছি, জিম-রানিং এবং বোলিং-ব্যাটিং দুটোই করেছি। বিশেষ করে আমার কোন জায়গায় ঘাটতি আছে সেই জায়গাগুলো নিয়ে কাজ করেছি। বোলিং-ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ফিটনেস নিয়েও কাজ করেছি। ভারতে যাওয়ার আগে আমার এরকম একটা প্রস্তুতি দরকার ছিল, আর অবশ্যই আমার নিজের জন্য ভালো হবে যদি এটা মাঠে প্রয়োগ করতে পারি। শতভাগ দিতে পারলে আমার জন্য ভালো হবে।’ মিরাজ আরও জানান, ‘আমি গত দুই-আড়াই বছর তিন ফরম্যাটেই খেলছি। এখন হয়তো টেস্ট দলে আছি, তবে আমার কাছে মনে হয় যে সময়টা পেয়েছি আমি নিজেকে আরও পরিপূর্ণ ক্রিকেটার হিসেবে তৈরি করতে পারছি। কারণ গত ১০-১২ দিন যে কাজটা করেছি এমন সুযোগ আগে থেকেই চাচ্ছিলাম। 

একটা সময় নিয়ে ব্যাটিং-বোলিং-ফিজিক্যাল যে ঘাটতি রয়েছে সেগুলো ইনপ্রুভ করার জন্য লম্বা সময় দরকার। আমি তো চাই লম্বা সময় ক্রিকেট খেলতে।’ ক্যারিয়ার দীর্ঘ করতে এই অনুশীলনগুলো কাজে লাগবে বলে মনে করেন মিরাজ, ‘লং টাইম খেলার জন্য শারীরিক ফিটনেস স্কিল অনেক ডেভেলপ করতে হয়। কারণ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট যখন খেলি তখন এক জায়গায় পড়ে থাকলে টিকে থাকতে পারবো না। দিনে দিনে অনেক উন্নতি করতে হবে এবং অনেক ওপরে যেতে হবে। এই সময়টা আমার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ, এটা আমি হয়তো কাজে লাগাতে পারবো সামনের দিনগুলোতে। এসব ছোট ছোট জিনিস নিয়ে আমি যে কাজ করেছি, এগুলো এক সময় কাজে লাগবে বলে আমি মনে করি।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ