ঢাকা, রোববার 8 December 2019, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

মিয়ানমার সীমান্তে বিজিবির সঙ্গে গোলাগুলিতে ২ রোহিঙ্গা নিহত

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: কক্সবাজার-৩৪ বিজিবির সঙ্গে গোলাগুলিতে ২ রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ৪০ হাজার ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। বিজিবি বলছে নিহতরা ইয়াবা কারবারি। রবিবার ভোরে নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম সীমান্তের তুমবরুর চম্পাকাটা এলাকায় এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। কক্সবাজার ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়দের শনাক্ততে, নিহতরা উখিয়ার কুতুপালং শিবির-১, ব্লক-বি’র মো. হাসিম আলীর ছেলে মো. ইয়াছিন (৩০) ও একই শিবিরের ব্লক-ডি/৪ এর বাসিন্দা মো. আবুল কালামের ছেলে মো. হোসেন আলী (২০)। তারা দুজনই গত ১১ নভেম্বর বাইশফাঁড়ি এলাকায় বিজিবি টহল দলের ওপর গুলি বর্ষণের ঘটনায় এজাহার ভূক্ত ৪ এবং ৫নং পলাতক আসামি।

বিজিবির অধিনায়ক আলী হায়দার আজাদ বলেন, চম্পাকাটা সীমান্তে টহল দেওয়ার সময় ১০/১২ জনের একটি দলকে থামতে বললে তারা বিজিবিকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। আত্মরক্ষায় বিজিবিও পাল্টা গুলি চালালে তারা পিছু হটে। পরে ঘটনাস্থল তল্লাশি করে এসব মাদক কারবারিদের মরদেহ পাওয়া যায়।

ঘটনাস্থল হতে একটি ওয়ান শুটারগান, ২ রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও ৪০ হাজার পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় মাদক ও অস্ত্র আইনে পৃথক মামলা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ইদানিং দেখা যাচ্ছে কুতুপালং শিবিরে অবস্থানরত কয়েকটি সংঘবদ্ধ সশস্ত্র ইয়াবা ব্যবসায়ীরা ইয়াবা চোরাচালান করছে। পালংখালী ও বালুখালী এলাকায় বিজিবির কঠোর অভিযান পরিচালনার কারণে বর্তমানে তারা ঘুমধুম ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ি এলাকা দিয়ে ইয়াবা চোরাচালান করার চেষ্টা করছে। এদের প্রতিহত করতে গিয়ে আক্রমণের শিকার হচ্ছে বিজিবি।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ