ঢাকা, রোববার 8 December 2019, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

মেগা প্রকল্পের চাপে উপেক্ষিত রেলের নিয়মিত সংস্কার কার্যক্রম

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশে গত পাঁচ বছরে রেলের জন্য বাজেটে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ৬০ হাজার কোটি টাকারও বেশি।প্রতিবছর বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে হাজার হাজার কোটি টাকা খরচও হচ্ছে।কিন্তু এসবের ছাপ রেলসেবায় কতটুকু দৃশ্যমান এ প্রশ্ন উঠছে জোরে সোরেই।

সংবাদ মাধ্যম বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ ও বুয়েটের পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক শামসুল হক মনে করেন, রেলের উন্নয়নের যে পরিকল্পনা সেখানেই ঘাটতি আছে।

তিনি বলছেন, রেলে নতুন বগি, ইঞ্জিন দরকার। নতুন বিনিয়োগ, অবকাঠামোও দরকার।কিন্তু সবার আগে দরকার দক্ষ জনবল। রেলে এখন জনবলেরই ঘাটতি আছে।এছাড়া বিদ্যমান রেল সেবাকে কতটা গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে সেই প্রশ্নও আছে। তিনি বলছেন, "আমরা এখন যে দুর্ঘটনাগুলো দেখি, সেগুলো কিন্তু পরিচালনা কিংবা রক্ষণাবেক্ষণ ঘাটতির কারণে দুর্ঘটনা। চালকের ভুল কিংবা সিগন্যাল সিস্টেমের ত্রুটির কথাও উঠে আসছে।

এই সবকিছুই কিন্তু পরিচালনা সংক্রান্ত বিষয়, অবকাঠামো নয়। তারমানে এখানে দক্ষ জনশক্তি দরকার। কিন্তু সেখানে বিনিয়োগ নেই। বিনিয়োগ আছে অবকাঠামোতে।"

মি. হক বলছেন, এই মুহূর্তে রেল লাইনের সংস্কার, ঝুঁকির্পণূ ব্রিজ মেরামত ইত্যাদি কাজে নিয়মিত ব্যস্ত থাকার কথা। কিন্তু রক্ষণাবেক্ষণের এসব কাজে বাজেট কম।

"আপনি যদি ঘণ্টায় ৫০ কি.মি. এর পরিবর্তে ঘণ্টায় ১শ কি.মি. বেগে ট্রেন চালাতে পারেন তাহলেই তো এক ট্রেন দিয়েই দুই ট্রেনের ট্রিপ দেয়া যায়। তখন আর এতো বগি, ইঞ্জিন, ড্রাইভার লাগে না।

এর জন্য তো রেললাইনের সংস্কার, সিগন্যালের উন্নতি করতে হবে। কিন্তু সেখানে নজর কম। মেগা প্রজেক্টে টাকা বেশি, সবার নজরই সেখানে।"

রেলে মেগা প্রজেক্টের সুফল পাচ্ছেন না সাধারণ মানুষ।

রেল কর্তৃপক্ষ কী বলছে?

রেলে যে বড় বড় প্রকল্প আছে এবং সেসব প্রকল্পেই যে বাজেটের বরাদ্দ টাকার সিংহভাগ ব্যয় হচ্ছে সেটা রেল কর্তৃপক্ষ স্বীকার করছে।

তবে তারা বলছে, দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে এসব প্রকল্প সরকার থেকেই নেয়া হচ্ছে এবং এগুলোর প্রয়োজনীয়তাও আছে।

এখন চেষ্টা করা হচ্ছে মেগা প্রকল্পের চাপ সামলে রেলের নিয়মিত কার্যক্রমের মান উন্নয়নের জন্য।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: মোফাজ্জেল হোসেন বলছেন, "মানুষ দেখছে যে রেলে হাজার কোটি টাকা বাজেট বরাদ্দ হচ্ছে। কিন্তু উন্নয়ন কোথায়? আসলে উন্নয়ন তো রাতারাতি হয় না।

উন্নয়ন প্রকল্পগুলো যখন বাস্তবায়ন হবে, মানুষ যখন এর সুফল পেতে শুরু করবে, ৮ ঘণ্টার যাত্রা চার ঘণ্টায় নেমে আসবে তখনি কিন্তু উন্নতিটা দৃশ্যমান হবে।"

রেল সচিব জানাচ্ছেন, রেলে সেবার মান উন্নয়নে প্রচুর লোকবল দরকার।

কিন্তু দীর্ঘদিন লোকবল নিয়োগ হয়নি। এখন নিয়োগ শুরু হয়েছে।

কিন্তু রেল এমন একটি খাত যে এখানে দক্ষ জনশক্তি গড়ে উঠতে সময় লাগে।

এখন চেষ্টা করা হচ্ছে, সেবার মান আরো বাড়ানোর।

সূত্র:বিবিসি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ