ঢাকা, রোববার 8 December 2019, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

পেঁয়াজের পর এবার লবণের দাম বৃদ্ধির গুজব

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: পেঁয়াজ নিয়ে এক শ্রেণির কৃত্রিম সংকট তৈরি করে দাম বৃদ্ধির পর এখন লবনের দাম বৃদ্ধির গুজব ছড়িয়ে সংকট সৃষ্টির চেষ্টা চলছে।প্রশাসনের তরফ থেকে লবনের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে জানিয়ে গুজব সৃষ্টিকারিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। 

নেত্রকোনার মদন উপজেলার বিভিন্ন খুচরা ও পাইকারি বাজারে মঙ্গলবার ভোরে লবণের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে এমন ‘গুজব’ ছড়িয়ে পড়লে পৌরসদরসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হয়েছে। এ সময় ২ ব্যবসায়ীকে ৪ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ওয়ালীউল হাসান। মদন থানার ওসি মো. রমিজুল হককে সাথে নিয়ে বিভিন্ন খুচরা ও পাইকারি বাজারে গিয়ে অধিক মূল্যে লবণ বিক্রি না করার জন্য ব্যবসায়ীদের সতর্ক করেন তিনি।

জানা গেছে, মদন উপজেলায় পিঁয়াজের দর একটু নিয়ন্ত্রণে আসতে না আসতেই লবণের দাম নিয়ে চলছে ব্যবসায়ীদের তেলেসমাতি। লবণের দাম বেড়েছে খবর শুনে বিভিন্ন দোকানে ক্রেতারা সর্বনিম্ন ৫ কেজি থেকে সর্বোচ্চ ২০ কেজি করে লবণ ক্রয় করছেন।

এরই প্রেক্ষিতে ওই দিন উপজেলা প্রশাসন পৌর সদরসহ উপজেলার সর্বত্র মাইকিং করে লবণের দাম বৃদ্ধির বিষয়টি ‘গুজব’ বলে জনগণকে সচেতন করছে। মদন বাজারের সুশীল পালের দোকানে অধিক মূল্যে লবণ বিক্রি হচ্ছে অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রশাসন তদন্ত করলে গতকালের চেয়ে বস্তা প্রতি ৫০ টাকা বেশি নেওয়া হচ্ছে কিন্তু লবণের প্যাকেটের গায়ের মূল্যে অধিক নয়। তাই অতিরিক্ত টাকা ক্রেতাদের ফেরত দিতে বলেন প্রশাসন। এ সময় হাওরাঞ্চলের অনেক ক্রেতা লবণ কিনতে ভিড় ও অতিরিক্ত লবণ সংগ্রহে ব্যস্ত হয়ে পড়লে উপজেলা প্রশাসন ব্যবসায়ীকে অতিরিক্ত লবণ বিক্রি করতে সতর্ক ও জনগণকে লবণের দাম বাড়বে না বলে সান্ত্বনা দেন।

উপজেলার সাহিতপুর গ্রামের তোফাজ্জল হোসেন, ফতেপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা গোলাম পারভেজ চৌধুরী, পৌরসদরের আল মাহবোব আলম জানান, লোক মুখে জানতে পেরেছি পিঁয়াজের মতো লবণের দামও বাড়বে। মদন পৌর সদরসহ উপজেলার সর্বত্র এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ীরা গুজব ছড়িয়ে অধিক মুনাফা হাতিয়ে নেওয়ার পায়তারা চালাচ্ছে। তাই আমরা ৫/১০ কেজি লবণ কিনে রেখেছি।

এ ব্যাপারে মদন থানার ওসি মো. রমিজুল হক জানান, লবণের কৃত্রিম সংকট ও অতিরিক্ত মূল্যে বিক্রি করার দায়ে উপজেলার জাওলা বাজারে আরিফ স্টোরকে ৩ হাজার টাকা ও বাড়রী বাজারের মাকালী স্টোরকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এমন খবর গুজব বলে জানিয়েছেন মদন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়ালীউল হাসান। তিনি বলেন, ‘মঙ্গলবার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ২ ব্যবসায়ীকে ৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। যদি কেউ এমন গুজব ছড়ানোর অপচেষ্টা করে, তবে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘এ ধরণের গুজব বন্ধে প্রশাসন, সাংবাদিক ও সুশীলসমাজের লোকজন এগিয়ে আসতে হবে।’

এরআগে গতকাল সোমবার সন্ধ্যা থেকে পুরো সিলেট জুড়ে লবণের দাম বেড়ে যাচ্ছে এমন খবর ছড়িয়ে পড়ে ।

এতে সোমবার সন্ধ্যা থেকে ক্রেতারা হুমড়ি খেয়ে পড়েন সিলেট নগরীর ভোগ্যপণ্যের দোকানগুলোতে। বাড়তি চাপে নিমিষেই ফুরিয়ে যায় নগরীর বিভিন্ন দোকানের লবণের স্টক। আবার অনেক ব্যবসায়ী বেশি দামে বিক্রির জন্য লবণ মজুদ করে রাখেন বলেও অভিযোগ ওঠেছে। সিলেট নগরী ছাড়াও পুরো জেলাজুড়ে লবণ নিয়ে চলছে এই লঙ্কাকাণ্ড।

প্রশাসন বলছে, লবণের দাম বৃদ্ধির খবর পুরোটাই গুজব। কেউ উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে এই গুজব ছড়াতে পারে। ব্যবসায়ীরাও জানিয়েছেন, লবণের চাহিদামাফিক সরবরাহ আছে। শিগগিরই দাম বাড়ার আশঙ্কা নেই। তবে ব্যবসায়ীরা এমনটি দাবি করলেও সোমবার রাতেই অনেক দোকানে বাড়তি দামে লবণ বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এদিকে গুজবকে কেন্দ্র করে জনগণকে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান জানিয়ে সিলেটের পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন নিজের ফেসবুকে লিখেন, 'প্রিয় সিলেটবাসী, বাজারে নিত্য-প্রয়োজনীয় সামগ্রীর পর্যাপ্ত সরবরাহ রয়েছে। কোন নিত্য-প্রয়োজনীয় সামগ্রীর দাম বাড়তে পারে এমন গুজবে কান না দেয়ার জন্য সকলকে বিশেষভাবে অনুরোধ জানাচ্ছি।'

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ