ঢাকা, শুক্রবার, 12 August 2011, ২৮ শ্রাবণ ১৪১৮, ১১ রমযান ১৪৩২
Online Edition

আর রাহীকুল মাখতূম

মূল : শাইখ সফিউর রহমান মোবারকপুরী
অনুবাদ : ডক্টর শাহ্ মুহাম্মাদ ‘আবদুর রাহীম
‘সোনালী সোপান' প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান৩৮/৩ বাংলাবাজার ঢাকা-১১০০
প্রকাশকাল : ডিসেম্বর ২০১০
হাদিয়া : ৬০০ টাকা

আর রাহীকুল মাখতূম। একটি জীবনচরিৎ। মহানবী (সা.) এর জীবনী। যে গ্রন্থটি বর্তমান বিশ্বে বেশ আলোচিত, প্রশংসনীয়। লেখক ভারতীয় বংশোদ্ভূত একজন নাগরিক। ১৩৯৬ হিজরীতে রবিউল আউয়াল মাসে পাকিস্তানের করাচিতে মহানবীর (সা.) সীরাত বিষয়ক সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে রাবেতা আলমে ইসলামী নবীকূল শিরমনী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর জীবনীমূলক রচনা আহবান করেছিল। জমা হয় ১১৮২টি প্রবন্ধ। আন্তর্জাতিক এ প্রতিযোগিতায় প্রথম থেকে পঞ্চম পর্যন্ত এ পাঁচজনকে পুরস্কৃত করা হয়। এই মহতী আয়োজনের উদ্দেশ্য ছিল উপযুক্ত গ্রন্থাকারদের মধ্যে সুগভীর মনীষা ও গবেষণাজনিত যৌক্তিক রচনা ও অনুসন্ধানী স্পৃহা সৃষ্টির মাধ্যমে নবী চরিৎ বিষয়ে উৎকৃষ্ট মানের গ্রন্থ রচনা। এটি ছিল কল্যাণবহ উদ্যোগ।

এর মাধ্যমে বিশ্বনবীর জীবনকে নির্ভূলভাবে জনগণের সম্মুখে তুলে ধরা হয়েছে। ভিত্তিহীন, যুক্তিহীন কথা এ গ্রন্থে স্থান দেয়া হয়নি। প্রতিটি আলোচনায় কুরআন, হাদিস, কিংবা ঐতিহাসিক প্রমাণ উপস্থাপন করা হয়েছে। যাতে পাঠকের মনে কোনো সংকোচ না জাগে। বিশ্বনবীকে নিয়ে আজ অবধি হাজার হাজার গ্রন্থ প্রণয়ন করা হয়েছে। আরো হবে। সন্দেহ নাই তাতে এর মধ্যে কয়টি গ্রন্থই যুক্তির বিচারে কষ্টিপাথরে যাচাই করলে গ্রহণযোগ্যতা পাবে? যেগুলো দলীল-প্রমাণহীন লেখা বলছি না সব মিথ্যা ও বানোয়াট। বরং বলবো গ্রহণযোগ্যতার ক্ষেত্রে কিংবা নির্ভূলতার মানদন্ডে দ্বিধা সৃষ্টি করবে। এ গ্রন্থটি তার থেকে আলাদা

লেখক প্রথমে গ্রন্থটি আরবি ভাষায় লিখেন। পরে উর্দু ভাষায়ও প্রকাশ করা হয়। আরবি, উর্দু, ইংরেজি ভাষায় গ্রন্থটি অল্পদিনে পাঠকপ্রিয়তা অর্জন করে। বাংলা ভাষায় ও এর কয়েকটি অনুবাদগ্রন্থ বের হয়। অনুবাদক বলেছেন, বইটি মূল আরবি, ও উর্দুর সাথে মিল রেখে এর সাবলীলতা আনয়নের চেষ্টা করা হয়েছে। ফলে এর মৌলিকত্ব রক্ষা হয়েছে। গ্রন্থাবলির প্রাসঙ্গিক স্থানে প্রচুর ঐতিহাসিক চিত্র/মানচিত্র সন্নিবেশ করা হয়েছে। তাছাড়া বইটির ডিজিটাল সিডি করা হয়েছে যা দেখে পাঠক রাসূলুল্লাহ (সা.) এর দেশের তার সময়কার ও বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে আনন্দও তৃপ্তি পাবেন। অন্যান্য গ্রন্থে এসব ছবি মানচিত্র নেই বলে এটি এক বিশেষ বৈশিষ্ট্য ধারণ করেছে। বর্তমান বাজার বিবেচনায় দামও বেশি নয়। ৬৪২ পৃষ্টায় এই বইটিকে সাজানো হয়েছে। সীরাতের সাথে সামঞ্জস্য রেখে কভার ডিজাইন ওকরা হয়েছে। যারা আশেকে রাসূল, জানতে চান তাঁর সঠিক জীবনেতিহাস, তাহলে আজই সংগ্রহ করুন ডক্টর শাহ মুহাম্মদ ‘আবদুর রাহীম অনুবাদিত গ্রন্থ আর রাহীকুল মাখতূম। বইটির বহুল প্রচার কামনা করি। -হুসাইন আল জাওয়াদ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ