ঢাকা, রোববার 27 November 2011, ১৩ অগ্রহাহণ ১৪১৮, ০১ মুহাররম ১৪৩৩
Online Edition

সালেহর ক্ষমতা হস্তান্তর চুক্তি স্বাক্ষরের পর ইয়েমেন আরো উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে

রেডিও তেহরান : ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট আলি আব্দুল্লাহ সালেহ ক্ষমতা হস্তান্তর চুক্তি স্বাক্ষরের পর আন্দোলনকারীদের ওপর দমন-পীড়ন বেড়েছে বলে বিভিন্ন সংবাদ সূত্রে জানা গেছে। গত দুই এক দিনে সরকারি সেনাদের হামলায় বহু মানুষ হতাহত হয়েছে। ইয়েমেনে জনগণের ওপর হত্যা ও দমন-পীড়ন চললেও পারস্য উপসাগরীয় সহযোগিতা পরিষদের প্রস্তাব অনুযায়ী সালেহর ক্ষমতা হস্তান্তর চুক্তি সই এবং এর বিনিময়ের তাকে বিচারের ঊর্ধ্বে রাখার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ আরো জোরদার হয়েছে। বিক্ষোভকারীরা আলি আব্দুল্লাহ সালেহ্র সঙ্গে বিরোধী কয়েকটি রাজনৈতিক দলের নেতাদের আলোচনারও তীব্র সমালোচনা করেছে। বিপ্লবীরা সালেহর সঙ্গে এসব নেতাদের আলোচনার বিষয়টিকে সরকার বিরোধী আন্দোলনে নিহতদের রক্তের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা হিসেবে অভিহিত করছে। ইয়েমেনে সরকারি বাহিনীর ব্যাপক দমন-পীড়ন ও রক্তক্ষয় সত্ত্বেও আরো বেশি সংখ্যক জনতা রাস্তায় নেমে এসেছে এবং তারা সালেহ ও তার সহযোগিদের বিচারের দাবি জানাচ্ছে। বিপ্লবীরা সালেহকে যুদ্ধাপরাধী হিসেবে অভিহিত করে বলেছে, সালেহর ভাড়াটে খুনিরা গত কয়েক মাসে অসংখ্য মানুষকে হত্যা করেছে। আলি আব্দুল্লাহ সালেহ ক্ষমতা হস্তান্তর চুক্তিতে স্বাক্ষর করায় যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা মিত্ররা খুশী হলেও এ পদক্ষেপ ইয়েমেনের জনগণের ব্যাপক বিরোধিতার সম্মুখীন হয়েছে এবং গত দু'দিনের বিক্ষোভ কর্মসূচি থেকেই এর প্রমাণ পাওয়া যায়।

ইয়েমেনের স্বৈরাচারী প্রেসিডেন্ট আলি আব্দুল্লাহ সালেহ গত বুধবার সৌদিআরবে বিরোধী কয়েকটি দলের নেতারা, সৌদি বাদশাহ ও পারস্য উপসাগরীয় পরিষদের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে ক্ষমতা হস্তান্তর চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। চুক্তি অনুযায়ী ভাইস প্রেসিডেন্ট মানসুর হাদির কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করে সালেহ বর্তমান সরকারের পতন ঠেকানোর চেষ্টা করছেন বলে অনেক বিশ্লেষক মনে করছেন। তাদের মতে ক্ষমতা হস্তান্তর সংক্রান্ত পারস্য উপসাগরীয় সহযোগিতা পরিষদের প্রস্তাবে সালেহকে বিচারের ঊর্ধ্বে রাখাসহ অনেক পরস্পর বিরোধী ও অস্পষ্টতা রয়েছে। যেমন ওই প্রস্তাবে সেনাবাহিনী পুনর্গঠন, নিরাপত্তা বিভাগের সংস্কার এবং গুরুত্বপূর্ণ সরকারি পদে কারা থাকবে সে সব সম্পর্কে কিছুই উল্লেখ নেই। কারণ এসব পদ আলি আব্দুল্লাহ সালেহ্র পুত্রসহ অন্য ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিদের দখলে রয়েছে। ইয়েমেনের বিপ্লবীদের অভিযোগ নতুন নির্বাচনের আগ পর্যন্ত সালেহ আলঙ্কারিক প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন যা সেদেশের জনগণ চায় না। কেউ কেউ বলছেন, পারস্য উপসাগরীয় সহযোগিতা পরিষদের ষড়যন্ত্রমূলক ওই প্রস্তাব ইয়েমেন সংকটকে আরো জটিল করে তুলবে। তাছাড়া প্রস্তাব অনুযায়ী সালেহ ক্ষমতা হস্তান্তর চুক্তিতে সই করায় বাহ্যিকভাবে তিনি ক্ষমতায় না থাকলেও পর্দার আড়ালে থেকে তিনি অপরাধযজ্ঞ চালিয়ে যাবেন। এ অবস্থায় ইয়েমেনের জনগণকে এসব ষড়যন্ত্র সম্পর্কে আরো বেশি সতর্ক থাকা জরুরি হয়ে পড়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ