ঢাকা, বুধবার 15 February 2012, ৩ ফাল্গুন ১৪১৮, ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৩
Online Edition

রায়পুরে সেচ কাজে অতিরিক্ত টাকা আদায়

রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) সংবাদদাতা : ডিজেল আর বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির অজুহাতে লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলা ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক বোরো চাষিদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায় করা হচ্ছে। সেচ পাম্পের মালিকরা সেচ খরচের জন্য গন্ডা প্রতি আগের চেয়ে ৮০-১০০ টাকা বেশি আদায় করছে। এতে আবাদ ও উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ব্যাহত হওয়ার আশংকা রয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় বোরো আবাদ সেচের ওপর নির্ভরশীল। ক্ষুদ্র-প্রান্তিক চাষিরা বিত্তবান সেচ পাম্প মালিক থেকে পানি কিনে নিয়ে জমিতে সেচ দিয়ে ফসল ফলান।

চরপাতা গ্রামের কৃষক হামিদ উল্যা ও বামনী গ্রামের সালামত উল্যা জানান, গত বোরো মওসুমে গন্ডা প্রতি (৬ শতাংশে এক গন্ডা) ১৪০-১৭০ টাকা সেচ খরচ বাবদ নেয়া হয়েছে। কিন্তু এবার ডিজেল ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির অজুহাতে প্রতি গন্ডায় ২০০ থেকে ২৫০ টাকায় আদায় করছে পাম্প মালিকরা। কোথাও কোথাও ৩০০ টাকা পর্যন্ত নেয়া হচ্ছে।

চরমোহনা গ্রামের আবদুল আজিজ বলেন, পাম্প মালিকরা আমাদের প্রজেক্টে গন্ডা প্রতি ২৮০ টাকা ধার্য করছে। সেচের পানি বাবদ যদি এত টাকা যায়, তাহলে উৎপাদন খরচ অনেক বেড়ে যাবে। এ কারণে কৃষকরা হতাশ হয়ে পড়েছে। অনেকে বোরো ফসল বাদ দিয়ে সয়াবিন চাষের কথা ভাবছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ