ঢাকা, বুধবার 15 February 2012, ৩ ফাল্গুন ১৪১৮, ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৩
Online Edition

সেবামূলক কাজে বাংলাদেশ বিশ্বে অনুসরণীয় হতে পারে -রবাট ও ব্লেক

সংগ্রাম ডেস্ক : তৃণমূল ও স্বেচ্ছাসেবামূলক কাজে বাংলাদেশ সারাবিশ্বে অনুসরণীয় হতে পারে বলে মনে করেন সফররত মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী রবার্ট ও ব্লেক। এ ক্ষেত্রে তিনি দারিদ্র্য দূরীকরণ ও নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশের অগ্রগতির কথা তুলে ধরেন। প্রয়াত মার্কিন সিনেটর এডওয়ার্ড এম কেনেডির বাংলাদেশ সফরের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট হলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। তিন দিনের বাংলাদেশ সফরের প্রথম দিনেই ব্লেক যোগ দেন মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু প্রয়াত মার্কিন সিনেটরের স্মরণ সভায়। স্বাধীনতার পর ৪০ বছর আগের এই দিনেই কেনেডী প্রথম আমেরিকান স্টেটসম্যান হিসেবে বাংলাদেশে আসেন। একে বাংলাদেশ মার্কিন সম্পর্ক সুদৃঢ় করার উদ্যোগ হিসেবেই নয়, সেবামূলক কাজের ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে আরও এগিয়ে নেবার স্মারক হিসেবেও দেখছেন মার্কিন মন্ত্রী। ব্লেক বলেন, তৃণমূল পর্যায়ের উন্নয়ন এবং কমিউনিটি ভিত্তিক কাজের ক্ষেত্রে বেশকিছু সফল কর্মসূচির প্রণয়নে অগ্রণী ভূমিকা রাখার ব্যাপারে নেতৃত্ব দিচ্ছে, যা অনুকরণীয় হতে পারে। নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনুস ক্ষুদ্র ঋণের মাধ্যমে লাখো মানুষকে দারিদ্র্য থেকে বের করে নিয়ে এসেছেন। নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন করেছেন। অন্যদিকে ইউটিউবের সহকারী প্রতিষ্ঠাতা বাংলাদেশী জাবেদ করীম। অনেক বাংলাদেশ বিশ্বকে দেখিয়েছে যে, একজন ব্যক্তির পক্ষে কি কি করা সম্ভব এবং গত কয়েক দশকে কতদূর এগিয়েছে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে ভবিষ্যতে কারা এগিয়ে নেবে সে কথাও বলেন তিনি। ব্লেক বলেন, তরুণ বাংলাদেশীরা এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি সচেতন। একই সাথে নিজ সৃষ্টিশীলতা সামর্থ্যের সহায়তায় তারা এরই মধ্যে হাজার হাজার কর্মঘণ্টা জনসেবায় ব্যয় করেছে। এর আগে কেনেডীর সম্মানে ধানমন্ডিতে সেন্টার ফর পাবলিক সার্ভিস এন্ড আর্ট সেন্টার স্থাপনের ঘোষণা দেয়া হয়। মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর ও মার্কিন দূতাবাসের যৌথ উদ্যোগে এ সেন্টার প্রতিষ্ঠা করা হবে। এটিএন বাংলা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ